শীতে ত্বকের যত্ন – জেনে নিন ডাক্তারদের দেয়া ঘরোয়া টিপ্স

শীতে ত্বকের যত্ন – জেনে নিন ডাক্তারদের দেয়া ঘরোয়া টিপ্স
শীত আসলে আমরা সকলেই ত্বকের যত্নের প্রতি আগ্রহী হয়ে উঠি। কেননা শীতের সময় মানুষের ত্বক শুষ্ক হয়ে যায়। শীত আরামদায়ক হলেও ত্বকের জন্য তেমন ভালো নয়। শীতের সময় ত্বকের সমস্যা সবচেয়ে বেশি হয়। সে যত বাড়তে থাকে ত্বকের সমস্যা ততই বেশি হতে থাকে। তাই শীতের শুরু থেকেই আমাদের ত্বকের প্রতি যত্ন নেয়া উচিত। যাতে ত্বক সতেজ ও তরতাজা থাকে।

শীতে ত্বকের যত্ন

প্রতিবছরই আমাদের শীতের কবলে পড়তে হয়। তাই শীতের জন্য দরকার ত্বকের বাড়তি যত্ন। কারণ সে তার নিয়ম অনুসারেই চলবে। শীতকালে আমাদের ত্বক শুষ্ক হয়ে যায় তাই শীতে ত্বকের একটু বাড়তি যত্ন নিতে হয়। কারণ শীতের সময় আমরা দেখি আমাদের ত্বক শুষ্ক হয় গেছে। ফলে আমাদের ত্বক দেখতে অনেক বাজে দেখায়। এর জন্য বিভিন্ন মানুষ বিভিন্ন রকম ভাবে ত্বকের যত্ন নিয়ে থাকেন।

শীতে শুষ্ক ত্বকের যত্ন

বেশিরভাগ মানুষই শুষ্ক ত্বকের সমস্যায় ভুগে থাকেন। ফলে যাদের ত্বক শুষ্ক শীতকালে তাদের ত্বক শুষ্ক হয়ে ওঠে। শুষ্ক ত্বকের যত্ন নেয়ার জন্য আমি একটি আইডিয়া শেয়ার করব। আশা করি আপনারা উপকৃত হবেন। শুষ্ক ত্বক সমস্যা দূর করতে আধা চা চামচ ভিটামিন ই তেল আর আধা চা চামচ গ্লিসারিন এর মিশ্রণ ত্বকে ব্যবহার করতে পারেন।

এছাড়া ত্বকের পুষ্টি বাড়াতে সপ্তাহে দুই দিন এটি ব্যবহার করতে পারেন। সুস্থ থাকার জন্য এক চা-চামচ মধু এবং আধা চা চামচ জলপাই তেল পরিমাণমতো মিশিয়ে মুখে লাগিয়ে 15 মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। আশা করি কার্য করি ভাল ফল পাবেন।

শীতে যাদের ত্বক তৈলাক্ত

তৈলাক্ত ত্বকের যত্ন হিসেবে অনেকে মশ্চারাইজার ক্রিম বেছে নেন। এছাড়াও আপনি মার্কেটে বিভিন্ন ধরনের ক্রিম পেয়ে যাবেন যার দ্বারা তৈলাক্ত ত্বকের সমস্যা দূর হয়। তৈলাক্ত ত্বক ভালো করার জন্য আপনি কিছু ঘরোয়া টিপস ব্যবহার করতে পারেন। যেমন লেটুস পাতার রস, মধু ও লেবুর রস মিশিয়ে ত্বকে লাগালে আপনি উপকার পাবেন। এছাড়াও পাকা পেঁপের সঙ্গে সামান্য মধু হইছে আপনি ত্বকে ব্যবহার করতে পারেন।

শীতকালে ত্বকের যত্নের বিভিন্ন টিপস

১. পেঁপে ও মধুর ফেসপ্যাক

পাকা পেঁপে ত্বকের জন্য ভীষণ উপকারী। পাকা পেঁপেতে প্রচুর পরমাণে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট থাকায় এটি অ্যান্টি এজিং এজেন্ট হিসেবে কাজ করে। আর অন্যদিকে মধু হল প্রাকৃতিক ময়েশ্চারাইজার যা আপনার ত্বককে করে তোলে নরম এবং কোমল।
উপকরণ একটি পাকা পেঁপে এবং মধু
পাকা পেঁপেটি থেঁতো করে একটি পেস্ট তৈরি করুন। তাতে মধু মিশিয়ে ঘন পেস্টটি মুখে, গলায়, হাতে লাগিয়ে নিন। ২০ মিনিট রেখে জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে এক দিন করে এই ফেসপ্যাক ব্যবহার করলেই আপনি পাবেন আকর্ষণীয় ত্বক।
২. দই দিয়ে তৈরি ফেসপ্যাক
দই ত্বককে ময়েশ্চারাইজ করার পাশাপাশি ত্বকের নমনীয়তা বাড়ায় এবং ত্বক যাতে দ্রুত ঝুলে না যায় সেদিকেও খেয়াল রাখে। দই দিয়ে বিভিন্ন রকম ফেসপ্যাক বানানো যায়। তার মধ্যে সবচেয়ে সহজ এবং কার্যকর ঘরোয়া উপায়টি আপনাদের জানাচ্ছি।
উপকরণ একটা ছোট বাটি দই ও এক টেবিল চামচ মধু
একটি বাটিতে দই ও মধু মিশিয়ে নিন। তারপর ত্বকে এই ফেসপ্যাকটি লাগান। ১৫ মিনিট পর ধুয়ে নিন। এবার নিজেই অনুভব করবেন যে, আপনার ত্বক আগের থেকে অনেক বেশি কোমল এবং সুন্দর হয়ে গেছে।
৩. গ্লিসারিন
গ্লিসারিন এমন একটি কার্যকরী উপাদান যা ত্বকের আর্দ্রতা পুনরুদ্ধার করতে সক্ষম। (৩) তাই শীতকালীন রূপচর্চায় এটি একটি অত্যাবশ্যকীয় জিনিস।
উপকরণ  গ্লিসারিন ও তুলো

তুলোয় করে গ্লিসারিন নিয়ে রুক্ষ শুষ্ক ত্বকে, কিংবা ফাটা জায়গায় লাগান। দেখবেন, অনেক উপকার পাবেন। সপ্তাহে বেশ কয়েকবার গ্লিসারিন ব্যবহার করতেই হবে। তাহলে খুব কম সময়ে আপনি ফল পাবেন। গ্লিসারিনের সঙ্গে অনেকে আবার জলও মিশিয়ে থাকেন। তবে এটা সম্পূর্ণ আপনার পছন্দের ওপর নির্ভর করছে।

শীতে মিশ্র প্রকৃতির ত্বকের যত্ন

শীতকালে সবচেয়ে বেশি বিপদে পড়েন মিশ্র প্রকৃতির ত্বকের মানুষেরা। কেননা তাদের ত্বক নিয়ে একটু বেশি সমস্যায় পড়তে হয়। কারণ শীতকালে ত্বক এমনিতেই শুষ্ক থাকে। এর জন্য আপনি মিষ্টি কুমড়া এর সঙ্গে পরিমাণমতো মধু ও দুধ মিশিয়ে সেটা ত্বকে ব্যবহার করতে পারেন। তবে এটি ব্যবহার করলে এটি ব্যবহারের 20 মিনিট পর ধুয়ে ফেলতে হয়। এটি একটি ঘরোয়া টিপস।

গোসলের সময় ও পরে ত্বকের যত্ন

শীতকালে ত্বকের যত্ন নেয়ার জন্য সাবান কম ব্যবহার করুন। কেননা সাবান ত্বককে শুষ্ক করে থাকে। তাই আদ্রতা যুক্ত সাবান ব্যবহার করুন। এতে ত্বকের খসখসে ভাব কমে আসবে। তাছাড়া জলপাই তেল ব্যবহার করে আপনি ভাল ফলাফল পেতে পারেন। তাছাড়া আমাদের দেশে রয়েছে খাঁটি সরিষার তেল যা প্রাচীন যুগ থেকে শীতে ব্যবহার হয়ে আসছে ত্বকের যত্নে। তবে তেল ব্যবহারের আগে দেখে নিতে হবে সেটি আপনার ত্বকের জন্য উপযুক্ত কিনা।

শীতকালে আমাদের দেশে গরম পানি দিয়ে গোসল করার প্রবণতা আছে। তবে গরম পানি দিয়ে মাথা ও মুখ দেওয়া যাবে না। কেননা ডাক্তাররা বলেন অতিরিক্ত গরম পানি ত্বকের কোষ ক্ষতিগ্রস্ত করে। ফলে ত্বকের আদ্রতা নষ্ট হয়ে যায় এবং ত্বকের মসৃণতা হারিয়ে ফেলে। তাই গোসলের পর এবং প্রতিবার মুখ দেয়ার পর ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করুন। এতে ত্বক ভালো থাকবে।

শীতের রাতে ঘুমানোর আগে ত্বকের যত্ন

রাতে ত্বকের খসখসে ভাব দূর করার জন্য প্রতিদিন ঘুমানোর আগে মশ্চারাইজিং লোশন ব্যবহার করুন। এছাড়াও আপনি ত্বকের যত্নে অলিভ অয়েল ব্যবহার করতে পারেন। কেননা অলিভওয়েল ত্বকের শুষ্ক ভাব দূর করার জন্য খুবই উপকারী। অলিভওয়েল হচ্ছে শুষ্ক ত্বকের জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ উপাদান।

আরো পড়ুন

অনলাইনে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট 2021

আইপি কলিং অ্যাপের রিচার্জ এখন বিকাশে

বাংলা ইমোশনাল ফেসবুক স্ট্যাটাস ২০২১

Maimuna Khan

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *