সিঙ্গাপুর যেতে কত টাকা লাগে এবং বেতন কত

প্রতিবছর বাংলাদেশ থেকে অনেক মানুষ সিঙ্গাপুর জেয়ে থাকে। এর মূল কারণ হলো বাংলাদেশ থেকে সিঙ্গাপুর যাওয়ার মাধ্যমে ভালো টাকা আয় করা যায়। আর তাই মানুষ বেশিরভাগই সিঙ্গাপুর যাওয়ার জন্য অনেক চেষ্টা করে। আর তাদের কথা বিবেচনা করে আমি আজকে সিঙ্গাপুর যাওয়ার বিষয়ে কিছু তথ্য শেয়ার করব।

মূলত আজকের এই পোষ্টের মাধ্যমে আমি আপনাদেরকে জানিয়ে দেবো যে সিঙ্গাপুর যেতে কত টাকা লাগে এবং ভিসা খরচ কি রকম হবে।বাংলাদেশ থেকে এখন পর্যন্ত যারা সিঙ্গাপুর কাজের উদ্দেশ্যে যে গিয়েছে তারা সবাই মোটামুটি ভালো অবস্থানে আছে। কারণ সিঙ্গাপুরের কোম্পানিগুলো তাদের কর্মচারীদের অত্যন্ত ভালো বেতনভুক্ত করে থাকেন।

আর সিঙ্গাপুরের টাকার রেট অনেক বেশি হওয়ায় সিঙ্গাপুরের বেতনে ভালো টাকা আয় করা যায়। তাহলে চলুন জেনে নেওয়া যাক সিঙ্গাপুর যেতে কত টাকা লাগে এবং ভিসা খরচ সম্পর্কে।

সিঙ্গাপুর যেতে কত টাকা লাগে

অনেকের মনে একটি প্রশ্ন জাগে যে সিঙ্গাপুর যেতে কত টাকা লাগতে পারে। তাদেরকে উদ্দেশ্য করে আমি আজকে জানিয়ে দেবো যে সিঙ্গাপুর যেতে ঠিক কত টাকা লাগতে পারে। যেহেতু সিঙ্গাপুরের কোম্পানিগুলো তার কর্মচারীদের অত্যন্ত ভালো সুবিধা দিয়ে থাকে। তাই বেশিরভাগ মানুষই সিঙ্গাপুর যেতে চায়।

সিঙ্গাপুরের সাধারণত ভিসার মাধ্যমে যেতে হয়। যেমন ওয়ার্ড পারমিট ভিসা, কন্সট্রাকশন ভিসা সহ বিভিন্ন ভিসার মাধ্যমে সিঙ্গাপুর যাওয়া যায়। এ ধরনের ভিসার ক্ষেত্রে আপনার খরচ ন্যূনতম 5 থেকে 6 লাখ টাকা হতে পারে। তবে আপনি যদি স্কিল প্রাপ্ত হন তাহলে আপনার খরচ আরো কম হবে।

সিঙ্গাপুর বেতন কত

সিঙ্গাপুরে গিয়ে আপনার কাজের বেতন কি রকম হবে তা নির্ভর করবে আপনার কাজের উপর। প্রথম অবস্থাতে আপনার বেতন একটু কম থাকলেও আপনি যদি দক্ষতা ও নিপুণতার সাথে কাজ করেন অর্থাৎ কোম্পানির মালিক যদি আপনার কাজে সন্তুষ্ট হয় তাহলে আপনি ভালো বেতনে কাজ করতে পারবেন।

সব সময় আপনার খেয়াল রাখতে হবে যে আপনার মালিক আপনার উপর খুশি কিনা। কারণ মালিক যদি খুশি না থাকে তাহলে আপনার বেতন কখনোই বাড়বে না। আর বিদেশে সবসময় পরিশ্রমী ও দক্ষতা সম্পন্ন মানুষদের পছন্দ করেন। তো বুঝতেই পারছেন যে আপনার বেতন কত হবে তা সম্পূর্ণ আপনার উপর নির্ভর করে।

সিঙ্গাপুরে সর্বনিম্ন বেতন কত

আপনাদের সকলের হয়তো একটি চিন্তা মাথায় থাকবে যে বেতন প্রথম প্রথম সর্বনিম্ন কত হতে পারে। তাহলে আপনাকে আমি জানিয়ে দিচ্ছি যে তারা আপনাদেরকে প্রথম অবস্থায় ৫০০ থেকে ৬০০ ডলারের কথা বলতে পারে। কিন্তু এটি বিশ্বাস করার কোন দরকার নেই। কারণ প্রথম অবস্থায় তারা আপনাদের ৪২০ থেকে ৪৪০ ডলারের মতো দিবে এর বেশি দেবেনা।

কারণ তারা দেখবে আপনি দক্ষ ও পরিশ্রমী কিনা। তারা যদি আপনাকে পর্যবেক্ষণ করে দেখে যে আপনি খুব একটা পরিশ্রমী না এবং দক্ষ না এক্ষেত্রে আপনার বেতন খুব একটা বাড়াবে না। তবে তারা যদি দেখে আপনি পরিশ্রমী এবং দক্ষ তাহলে আপনার বেতন ১০০০ ডলার পর্যন্ত হতে পারে।

সিঙ্গাপুরে কোন কাজের চাহিদা বেশি

আপনি যদি আপনার সাধারণ বুদ্ধি খাটান তাহলে এমনিতেই বুঝতে পারবেন যে সিঙ্গাপুরে কোন কাজের চাহিদা সবচেয়ে বেশি। আসলে যে কাজের বেতন সবচেয়ে বেশি এবং সহজ সেই কাজের চাহিদা সবচেয়ে বেশি হয়ে থাকে। আমি আপনাদেরকে এখন জানিয়ে দেবো যে সিঙ্গাপুরে কোন কোন কাজের চাহিদা সবথেকে বেশি।

আসলে সিঙ্গাপুরে ওয়েল্ডিং এর কাজের চাহিদা সবথেকে বেশি। এ কাজ একটু পরিশ্রম এর হলেও এ কাজের বেতন অত্যন্ত ভালো হয়ে থাকে। আর তাই বেশিরভাগ মানুষই ওয়েল্ডিং এর কাজ করতে চায়। তাই আপনি যদি ওয়েল্ডিং এর কাজ করতে চান সিঙ্গাপুরের গিয়ে তাহলে এই কাজের উপর দক্ষতা অর্জন করতে পারেন।

সিঙ্গাপুর স্কিল

আমরা অনেকেই হয়তো সিঙ্গাপুর স্কিল সম্পর্কে শুনে এসেছি। সাধারণত কোন কাজের উপর দক্ষতা অর্জন করাই হলো স্কিল। অনেকেই ভাবে যে সিঙ্গাপুর যেতে হলে স্কিল করতেই হয়। তবে সিঙ্গাপুর যাওয়ার ক্ষেত্রে স্কিল করার কোন ধরা বাধা নিয়ম নেই আপনি চাইলে এমনিও যেতে পারেন তবে স্কিল এর সার্টিফিকেট নিয়ে যাওয়া ভালো।

আপনার যদি প্রথম থেকেই স্কিল এর সার্টিফিকেট থাকে তাহলে আপনার বেতনের পরিমাণ শুরু থেকেই ভালো হবে। শুধু তাই নয় আপনার ভিসা খরচ কম পড়বে। তাই আপনি যদি ভাল টাকা আয় করতে চান তাহলে সিঙ্গাপুর স্কিল সার্টিফিকেট এর মাধ্যমে যেতে পারে। তবে আপনাকে যে স্কিল করতেই হবে তার কোন ধরা বাধা নিয়ম নেই।

সিঙ্গাপুর যেতে কত বয়স লাগে

সিঙ্গাপুর যাওয়ার ক্ষেত্রে আপনার বয়স খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সিঙ্গাপুর যাওয়ার ক্ষেত্রে একটি নির্দিষ্ট বয়সসীমা দেওয়া হয়। আপনার বয়স যদি এর ভেতরে হয় তবে আপনি সিঙ্গাপুর যেয়ে কাজ করতে পারবেন। না হলে আপনি কাজ করতে পারবেন না। তাই আমি আপনাদেরকে আজকে জানিয়ে দেবো যে সিঙ্গাপুর যদি আপনি যেতে চান তাহলে আপনার বয়স কতর মধ্যে থাকতে হবে।

আর সিঙ্গাপুরে ভালো সুযোগ-সুবিধা থাকায় বেশিরভাগ মানুষই সিঙ্গাপুর যেতে চায়। তবে সিঙ্গাপুর যাওয়ার জন্য সিঙ্গাপুরের শর্তগুলো মানা দরকার। সিঙ্গাপুরের শর্ত অনুযায়ী আপনার বয়স ১৮ থেকে ৫০ এর মধ্যে হতে হবে। অর্থাৎ আপনার বয়স যদি ১৮ থেকে কম কিংবা ৫০ এর থেকে বেশি হয় তাহলে সিঙ্গাপুরের কোম্পানিগুলো তে আপনি কাজ করতে পারবেন না।

সিঙ্গাপুর টাকার রেট

প্রাই বেশিরভাগ মানুষই একটি বিষয় সবচেয়ে বেশি জানতে চায় আর সেটি হল, সিঙ্গাপুর টাকার রেট কত। বর্তমানে দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্ব গতি এর কারণে বাংলাদেশে টাকার মূল্য অনেক কমে গেছে। যার কারণে বিদেশি টাকার রেট অত্যন্ত বেশি। আর টাকার রেট বেশি হওয়ায় বাংলাদেশি কর্মচারীদের বিদেশে বেতনের পরিমাণ অত্যন্ত বেশি বৃদ্ধি পেয়েছে।

যার কারণে সিঙ্গাপুরের টাকার রেট অনেক বেশি বৃদ্ধি পেয়েছে। আমরা সকলেই প্রায় খেয়াল করেছি যে ১০ বছর আগেও সিঙ্গাপুরের টাকার রেট বাংলাদেশী টাকায় অনেক বেশি ছিল। আর এখন তো বাংলাদেশের টাকার মান আরো কমে গেছে সেহেতু সিঙ্গাপুরের টাকার রেট এখন অত্যন্ত বেশি পরিমাণ হয়ে গেছে।

তাই আপনি যদি সিঙ্গাপুরের টাকার রেট কত, এটি জানতে চান তাহলে আজকের দেওয়া এই পোস্টটি ভালোভাবে আপনাকে পড়তে হবে। কারণ আজকের এই পোস্টের মাধ্যমে আমি আপনাদেরকে জানিয়ে দেবো যে সিঙ্গাপুরের টাকার রেট টাকায় কত।

সিঙ্গাপুর ১ টাকা বাংলাদেশের কত টাকা

আপনারা হয়তো অধীর আগ্রহে একটি বিষয় সম্পর্কে জানতে চাচ্ছেন যে সিঙ্গাপুরের এক টাকা বাংলাদেশে টাকায় কত টাকা। আর এখন আমি আপনাদেরকে জানিয়ে দেব সিঙ্গাপুরের এক টাকা বাংলাদেশী টাকায় কত টাকা হতে পারে। তাহলে চলুন আর দেরি না করে জেনে নেয়া যাক সিঙ্গাপুর এক টাকা বাংলাদেশের কত টাকা।

সিঙ্গাপুর ০১ টাকা = ৮২.১৫ টাকা বর্তমান সময়ে।

তো বুঝতেই পারছেন এখন যদি আপনি সিঙ্গাপুর কঠোর পরিশ্রমের সাথে কাজ করেন তাহলে আপনার বেতন ও বাড়বে। আর আপনি ভালো টাকা আয় করতে পারবেন যদি কঠোর পরিশ্রম করেন।

সিঙ্গাপুর ভিসা কত টাকা

সিঙ্গাপুর ভিসা খরচ কেমন হবে তা নির্ভর করে ভিসার ওপর। একে্ক ভিসার খরচ একেক রকম হয়ে থাকে। তাই আপনার ভিসার কত টাকা লাগবে তার সম্পূর্ণ আপনার উপর নির্ভরশীল। আপনি যে ভিসার মাধ্যমে যেতে চান সিঙ্গাপুরে সেই ভিসা অনুযায়ী আপনার খরচ পড়বে।

তবে আপনাকে এইটুকু আশ্বস্ত করতে পারি যে আপনার খরচ সর্বোচ্চ ৫ থেকে১০ লক্ষ টাকা ও হতে পারে। আশা করি আপনি বুঝতে পেরেছেন। আজকের এই পোষ্টের মাধ্যমে আমি আপনাদেরকে সকল গুরুত্বপূর্ণ তথ্যগুলো দিয়ে দিয়েছি। আজকের এই পোষ্টের দ্বারা আপনি যদি উপকৃত হয়ে থাকেন তাহলে আমার দেওয়া আজকের এই পোস্টটি আপনি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে পারেন ।

সিঙ্গাপুর যেতে কি কি লাগে

১. সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ যে জিনিসটি লাগবে সেটি হল পাসপোর্ট।

২. মেয়াদ সম্পন্ন আইপি এর কপ।

৩.পাসপোর্ট সাইজ দুই কপি ছবি।

৪. সিঙ্গাপুর অবস্থানরত কারো থেকে আমন্ত্রণ পত্র।

৫. ভিসা ফি ৩০০ ডলার।

Read More 

চট্টগ্রাম টু কক্সবাজার বাস ভাড়া ও সিডিউল তালিক

সৌদি এয়ারলাইন্সের টিকেট দাম কত