সার্বিয়া কাজের ভিসা ২০২৩ – ওয়ার্ক পারমিট ভিসা

সার্বিয়া কাজের ভিসা ২০২৩ – ওয়ার্ক পারমিট ভিসা

আপনি কি সার্বিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসা বা কাজের ভিসায় সার্বিয়া যেতে চান? তাহলে আপনি সার্বিয়া কাজের ভিসায় আবেদন করে নিতে পারেন। সার্বিয়া সরকার ড্রাইভিং, হোটেল, রেস্টুরেন্ট, মিস্ত্রি, নির্মাণ শ্রমিক এসকল ভিসায় তাদের দেশে শ্রমিক নিয়োগ দিচ্ছে। আপনারা যারা সার্বিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসায় যেতে চান তারা এই কয়েকটি কাজের যেকোন একটিতে যেতে পারেন।

তবে মনে রাখবেন সার্বিয়া যেতে হলে সরকারিভাবে যাওয়া ভালো। এজন্য আপনাকে বাংলাদেশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে ভিসার জন্য আবেদন করতে হবে। আবেদন করার পূর্বে অবশ্যই ভিসা আবেদনের জন্য যা যা প্রয়োজন সবকিছু আপনাকে সঙ্গে করে নিয়ে যেতে হবে।

সার্বিয়া কাজের ভিসা ২০২৩

যারা সার্বিয়া কাজের ভিসায় যেতে চান তারা ড্রাইভিং , হোটেল-রেস্টুরেন্ট, রাজমিস্ত্র্‌, নির্মাণ শ্রমিক যেকোনো একটি কাজে যেতে পারেন। তবে মনে রাখবেন ড্রাইভিং ও হোটেল রেস্টুরেন্ট ভিসা তে বেতনের পরিমাণ বেশি থাকে। আর আমাদের সবার বিবেক যাওয়ার পূর্ব শর্তই হচ্ছে টাকা উপার্জন করা। তাই ড্রাইভিং ও হোটেল-রেস্টুরেন্ট ভিসায় যাওয়া ভালো।

যেহেতু সরকার অতি দ্রুত শ্রমিক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে। তাই যত তাড়াতাড়ি সম্ভব সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্র নামের কোন একটি সংস্থা থেকে ভিসা আবেদন করে নিন। ভিসা আবেদনের পূর্বে আপনার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ও টাকা পয়সা হাতে নিয়ে তারপর আবেদন করবে।

সার্বিয়া কাজের ভিসা খরচ

আপনি যদি কাজের বা ওয়ার্ক পারমিট ভিসায় সার্বিয়ার পেতে চান তাহলে আপনার খরচ পড়বে আপনি কোন কাজে সার্বিয়া যাবেন তার উপর। যদি আপনি হোটেল বা রেস্টুরেন্ট ভিসা সার্বিয়া যেতে চান তাহলে আপনার খরচ পড়বে ৬ লক্ষ থেকে ৭ লক্ষ টাকা। আর যদি আপনি নির্মাণ শ্রমিক ভিসায় যেতে চান তাহলে আপনার খরচ পড়বে .৫ লক্ষ থেকে ৬ লক্ষ টাকা।

ড্রাইভিং ভিসার সার্বিয়া যেতে খরচ পড়ে .৫ লক্ষ টাকা। তবে মনে রাখবেন এই খরচের পরিমান নির্দিষ্ট না। কেননা সময় সাপেক্ষে খরচের পরিমাণ কম অথবা বেশি হতে পারে। তবে স্বামীকে টাকার পরিমাণ দিয়েছি এর মধ্যেই থাকবে। ৫ থেকে ১০ হাজার কমবেশি হতে পারে।

সার্বিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসা

সার্বিয়া কাজের ভিসা ও ওয়ার্ক পারমিট ভিসা মূলত এ কই। কাজের ভিসার ইংরেজি নাম work-permit ভিসা। তাই যারা ওয়ার্ক পারমিট ভিসা তে সার্বিয়া যেতে চান তারা অতি দ্রুত আবেদন করে নিন। কেননা সূর্য আপনার সামনে একবার আসবে বারবার নয়। তাই যখন যে সুযোগ পাবেন সেটা কাজে লাগানোর চেষ্টা করবেন।

উপরে আমি সার্বিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসা বা কাজের ভিসায় যাওয়ার জন্য কি কি লাগে এবং কি পরিমাণ টাকা লাগে তার বিস্তারিত আলোচনা করেছি। তাই আপনার যা জানা প্রয়োজন তা আপনি উপরে পেয়ে যাবেন। উপরের অংশ মনোযোগ সহকারে পড়ুন।

সার্বিয়া বেতন কত

কোন দেশে যাওয়ার পূর্বে আমাদের বেতন জেনে নেয়া আবশ্যক। কেননা আমরা বিদেশ যাই টাকা কামানোর উদ্দেশ্যে। তাই বেতন এখানে মূখ্য বিষয়। সার্বিয়া বেতন নির্ভর করবে আপনার কাজের ওপর। আপনি যদি ড্রাইভিং এর ভিসায় সার্বিয়া যেতে চান তাহলে আপনার বেতন পড়বে ৬০ থেকে ৭০ হাজার টাকা।

আর আপনি যদি নির্মাণশ্রমিক ভিসায় সার্বিয়া যেতে চান তাহলে আপনার বেতন পড়বে ৪০ হাজার টাকার মতো। আর যদি আপনি রেসটুরেন্ট অথবা হোটেল ভিসায় সার্বিয়া যান তাহলে আপনার বেতন করবে ৫০ হাজার টাকা। তবে মনে রাখবেন এই বেতন প্রাথমিক বেতন। তাছাড়া প্রতি.৬ মাস পরপর আপনার বেতন বাড়বে।

Read More

জাপান যেতে কত টাকা লাগে – জাপান কাজের ভিসা

মালয়েশিয়া ভিসা কবে খুলবে – ভিসা খরচ ও আবেদনের নিয়ম

বন্ধুর জন্মদিনের শুভেচ্ছা স্ট্যাটাস – ভাবিকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা

সরকারি অনলাইন ইনকাম – মাসে 60 হাজার টাকা উপার্জন করুন

Maimuna Khan

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *