ব্যবসা করার নিয়ম – ১০+ সফলভাবে ব্যবসা করার নিয়ম

ব্যবসা করার নিয়ম – ১০+ সফলভাবে ব্যবসা করার নিয়ম

ব্যবসা করার নিয়ম – আপনি কি একজন ভালো উদ্যোক্তা হতে চান। আপনি কি একজন ভালো ব্যবসায়ী হতে চান। ব্যবসায়ী হওয়ার সকল কৌশল ও নিয়মকানুন সম্পর্কে আপনি জানতে চান। তবে আমাদের এই পোস্টটি আপনার জন্যই। কেননা আমরা এখন আপনাকে সেই সকল নিয়ম সম্পর্কে জানাতে চলেছি যার মাধ্যমে আপনি আপনার ব্যবসায় উন্নতি করতে পারবেন।

ব্যবসা করা একটি সাধারণ কাজ নয়। কারন একটি ব্যবসা শুধু আপনার নিজের কর্মসংস্থান হয়না তার পাশাপাশি আপনার ব্যবসা এরমধ্যে কাজ করা বিভিন্ন মানুষের কর্মসংস্থান হয়। এর ফলে একজন ব্যবসায়ী শুধু ব্যবসার মাধ্যমে তার নিজের কর্মসংস্থান আবার নিজের বাড়ির মানুষকে সুখী করে না। তার পাশাপাশি সে তার কর্মচারীদেরও সুখী রাখে। তাই ব্যবসা হচ্ছে একটি সেরা পেশা।

তবে ব্যবসা করার জন্য আপনাকে অবশ্যই প্রথমে অনেককিছু সম্পর্কে জানতে হবে। নইলে আপনি আপনার ব্যবসায় উন্নতি সাধন করতে পারবেন না। সেই সকল নিয়ম কারণ গুলো আপনার জানা থাকলে আপনি খুব সহজে আপনার ব্যবসাকে বড় পর্যায়ে নিয়ে যেতে পারবেন। চলুন আর দেরি না করে ব্যবসা করার বিভিন্ন কৌশল গুলো সম্পর্কে জেনে নেই।

ব্যবসা করার নিয়ম

ব্যবসা করতে হলে সব সময় আপনার কিছু না কিছু মাথায় বুদ্ধি রাখতে হবে। তবে আপনি আপনার ব্যবসায় উন্নতি করতে পারবেন। যদিওবা আজকাল একটু টাকা হলে সবাই ব্যবসা করতে চায় কিন্তু তারা অবশেষে ব্যবসায় লোকসান করে ব্যবসা ছেড়ে দেয়।

যার ফলে আমরা ভয় পাই ব্যবসা করতে। কিন্তু আজ আমাদের এই পোস্টটি আপনি পুরোপুরি পড়লে বুঝতে পারবেন ব্যবসা কিভাবে করবেন এবং আর কখনো ব্যবসা করতে ভয় পাবেন না।

ব্যবসা নির্বাচন

কোন ব্যবসা করতে হলে সবার প্রথমে আপনাকে আপনি কি ব্যবসা করবেন সেটা নির্ধারণ করতে হবে। ভালো একটি ব্যবসা নির্ধারণ করতে পারলে তবে আপনি সফলতার দিকে এগোতে পারবেন। তবে শুধু যে ভালো একটি ব্যবসা শুধু নির্বাচন করলেই আপনি সফল তা কিন্তু নয়। সেই ব্যবস্থা কে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারলেই আপনি সফল। তাই প্রথমে ভালো নির্বাচন করে সেই ব্যবসাকে কিভাবে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া যায় সে বিষয়ে চিন্তা করতে হবে।

বর্তমানে সবচেয়ে লাভজনক ব্যবসা

ব্যবসা পরিকল্পনা

কোন ব্যবসা করতে হলে প্রথমে আপনাকে তার জন্য দীর্ঘ পরিকল্পনা করতে হবে। পরিকল্পনা না করে কোন ব্যবসা হুট করে শুরু করা ভালো নয়। এতে যে কোন সময় ব্যবসাটি লোকসান হয়ে যেতে পারে। তাই সবার প্রথমে আপনাকে ব্যবসায় কি বিক্রি করবেন এবং আপনি কি তৈরি করবেন ।তা জানতে হবে বুঝতে হবে এবং সে অনুযায়ী পরিকল্পনা করতে হবে। আপনি আপনার ব্যবসায় উন্নতি করতে পারবেন।

ব্যবসার ইনভেসমেন্ট

একটি ব্যবসা শুরু করার প্রথমে আপনাকে সে ব্যবসার একটি বাজেট করতে হবে। সেই বাজেট অনুযায়ী আপনাকে টাকা ব্যয় করতে হবে। সে ব্যবসার যে মূল্য নির্ধারণ করেছেন আপনি সে মূল্য অনুযায়ী আস্তে আস্তে আপনার ব্যবস্থাটিকে প্রসারিত করতে হবে। আপনি আপনার ব্যবসার দিকে এগিয়ে নিয়ে যেতেপারবেন।

ব্যবসার ইনভেসমেন্ট হচ্ছে একটি বড় এবং অপরিসীম একটি অঙ্গ। আপনার যত টাকা প্রয়োজন তার চেয়ে আপনি যদি বেশি ব্যয় করেন তবে আপনার ব্যবসায় লোকসান হবে। আবার আপনার ব্যবসা যত টাকা প্রয়োজন সে টাকা আপনার কাছে নেই তার চেয়ে কম আছে তবে আপনি টাকার অভাবে আপনার ব্যবস্থাটিকে লোকসানের দিকে ঠেলে দেবেন। এতে করে আপনি আপনার ব্যবসায়ের খাতের প্রয়োজনীয় টাকা মেটাতে পারবেন না। তখন আপনাকে ব্যবসা ছেড়ে দিতে হবে।

ব্যবসায়ের নিবন্ধন করা

আপনি যে ব্যবসাটি করবেন এই ব্যবসাটি শুরু করার পূর্বে আপনাকে সেই ব্যবসাটি নিবন্ধন করতে হবে। নিবন্ধন দু’ধরনের হয়ে থাকে একটি হচ্ছে আইনি নিবন্ধন আরেকটি হচ্ছে সরকারি নিবন্ধন। আপনি যদি নিবন্ধন করে থাকেন তবে আপনার ব্যবসা টির মূল খুব শক্ত হবে।

আইনি নিবন্ধন করার ফলে আপনি আপনার ব্যবস্থা যে কোন আইনগত সহায়তা পেতে পারবে। এর ফলে আপনি কোন আইনগত সমস্যায় পড়লে তখন আপনাকে নিবন্ধনের মাধ্যমে আইন সহায়তা করে থাকবে। ফলে আপনি খুব সহজেই আপনার ব্যবস্থাটিকে টিকিয়ে রাখতে পারবেন।

সরকারি নিবন্ধন করলে আপনি যে কোন সময় কোন বিপদে পড়লে সরকারি কোনো সহায়তা এলে তা আপনি পেতে পারেন। কখনো কখনো সরকার ব্যবসায়ীদেরকে ব্যবসা এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য ঋণ দিয়ে থাকে। এই নিবন্ধন করা থাকলে তখন আপনি নিন পাওয়ার আওতায় চলে আসতে পারেন। এছাড়া বিভিন্ন ধরনের সরকারি সুযোগ-সুবিধা আপনি পাবেন এই সরকারি নিবন্ধন করার মাধ্যমে।

ব্যবসা বীমা করুন

আপনার ব্যবসা যদি মোটামুটি আকারের বড় হয়ে থাকে এবং ছোটখাটো ঝুঁকি থাকে তবে আপনি একটি বীমা করে রাখতে পারেন। যদি কখনো আপনার ব্যবসায় কোন বড় ধরনের এক্সটেন্ড হয় তখন আপনাকে এই বীমা কোম্পানি বীমা টি সহায়তা করবে। তখন এই বীমা আপনার পাশে দাঁড়াবে। তো তাই আপনি আপনার ব্যবসার জন্য বীমা করে রাখতে পারেন।

দক্ষ কর্মী নিয়োগ

একটি ব্যবসা করতে হলে আপনার কিছু কর্মীর দরকার হতে পারে। তবে সেই ব্যবসা আপনাকে অবশ্যই ভালো করে দেখে বুঝে শুনে কর্মী নিয়োগ দিতে হবে। যে কাউকে কর্মী নিয়োগ দিলে আপনি ব্যবসায় লোকসান করে ফেলতে পারেন। তাই ভালোভাবে বুঝে শুনে সবচেয়ে দক্ষ কর্মী নিয়োগ দেওয়ার মাধ্যমে আপনি আপনার ব্যবসাকে আরেকটি ধাপ ওপরে নিয়ে যেতে পারবেন।

ব্যবসায় বিক্রেতা নিয়োগ

ব্যবসার দিকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য আপনি বিভিন্ন জায়গায় আপনার ব্যবসার বিক্রেতা নিয়োগ দিতে পারেন। তবে বুঝেশুনে ভালো যেসব জায়গায় ভালো ক্রেতা পাওয়া যাবে সেসব জায়গায় বিক্রেতা নিয়োগ দেবেন। আর বিক্রেতা যেন ভালো পরিমাণে বিক্রি করে এরকম হতে হবে। যে সকল জায়গায় ভালো ধরনের বিক্রি হয় সে সকল জায়গায় বিক্রেতা নিয়োগ দেবেন। এর ফলে আপনি আপনার ব্যবসাকে অনেক প্রসারিত করতে পারবেন।

ব্যবসাটির পণ্যের বিজ্ঞাপন দেওয়া

আপনি যদি আপনার ব্যবসাকে অনেক বড় করে ফেলেন এবং আরো বড় করতে চান তবে সবচেয়ে বড় উপায় হচ্ছে পন্যের বিজ্ঞাপন দেওয়া। মানুষের কাছে আপনার পণ্য সম্পর্কে বিবরণ পৌঁছাবে। মানুষের কাছে আপনার পণ্যটি পরিচিত হলে তখন বিক্রি আরো বেশি হবে। এর ফলে আপনার ব্যবস্থাটি আরো অনেক উন্নত সাধন হবে। তাই ব্যবসা উন্নতি করতে হলে একটি বড় অংশ হচ্ছে ব্যবসা এর বিজ্ঞাপন দেওয়া।

ব্যবসা বৃদ্ধি করা

ব্যবসা শুরু করে এবং পণ্য বিক্রি করলেই ব্যবসায় আপনি সফল হয়ে যাবেন না। তারপর আস্তে আস্তে সেই ব্যবসাটি কিভাবে ধরে রাখা যায় তার সম্পর্কে বুঝতে হবে এবং বুদ্ধি খাটিয়ে তা ধরে রাখার চেষ্টা করতে হবে। এছাড়াও কিভাবে ব্যবসাটি আস্তে আস্তে আরও প্রসারিত করা যায় তাও জানতে হবে। এরকম করে আস্তে আস্তে আপনি আপনার ব্যবস্থাটিকে বৃদ্ধি করে একসময় বড় ব্যবসায়ী রূপে রূপান্তরিত হতে পারবে।

আশা করি আমরা আপনাদেরকে ব্যবসায়ের যে নিয়ম কৌশল গুলো সম্পর্কে বলেছি তা আপনি বুঝে গেছেন। যদি আপনার কোন প্রশ্ন থেকে থাকে এই পোষ্টটি সম্পর্কে তবে আপনি কমেন্টের মাধ্যমে আমাদেরকে জানাতে পারেন। আমরা আপনাকে অতিশীঘ্রই উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করব। এতক্ষন আমাদের সঙ্গে থাকার জন্য আপনাকে অনেক ধন্যবাদ।

Link –  ১০ + ইউনিক বিজনেস আইডিয়া

ছাত্রদের জন্য ১০ + ব্যবসা আইডিয়া

Maimuna Khan

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *