রোজা রাখলে শরীরে যেসব উপকার হয়

রোজা রাখলে শরীরে যেসব উপকার হয়

আসসালামুয়ালাইকুম সম্মানিত মুসলমান ভাই ও বোনেরা। আশা করি মহান রাব্বুল আলামিনের রহমতে আপনারা সকলেই ভালো আছেন। আপনাদের সকলের দোয়ায় এবং আল্লাহর রহমতে আমরাও আলহামদুলিল্লাহ ভালো আছি। আজ আমরা কথা বলবো পবিত্র মাহে রমজানের মধ্য রোজা রাখার ফলে যেসব উপকার হয় তা নিয়ে। আশা করি আপনাদের কাছে আমাদের এই পোস্টটি খুবই ভালো লাগবে। তাহলে চলুন সময় নষ্ট না করে চলে যাওয়া যায় আজকের মূল বিষয়।

রোজা রাখলে শরীরে যেসব উপকার হয়

রোজা এমন একটি জিনিস যা খুবই বরকতময়। এটি এতটাই বরকতময় যে রোজা রাখার প্রতিদান স্বয়ং মহান রাব্বুল আলামিন নিজে দিবেন। শুধু এখানেই ক্ষান্ত নয়, রোজা রাখার মাধ্যমে শরীরের বিভিন্ন অঙ্গ-প্রত্যঙ্গের মাঝে দারুন উপকার পাওয়া যায়। নিচে রোজা রাখার ফলে শরীরে যেসব উপকার হয় তা নিয়ে অল্প কিছু তথ্য তুলে ধরলাম।

১।রোজা ওজন কমাতে সহায়তা করেঃ দীর্ঘ সময় পানাহার থাকার কারণে শরীরের মধ্য থেকে থাকা বাড়তি মেদ কমে যায়। তাই যাদের বাড়তি মেদ আছে তারা রোজা থাকার মাধ্যমে নিজেদের ওজন কমিয়ে দিতে পারেন। তবে অবশ্যই ফলো করতে হবে যেন ইফতার এবং সেহরিরতে বেশি পরিমাণে না খাওয়া।

২। উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণঃ রোজা থাকার কারণে শরীরের মধ্যে থেকে থাকা অতিরিক্ত ফ্যাট শক্তিতে রূপান্তরিত হয়। লম্বা সময় খাবারের বিরতি থাকার জন্য শরীর বিপাকীয় কাজের পরিমাণ হ্রাস পায়। যখন অ্যাড্রিনালিন ও নন অ্যাড্রিনালিন এর হরমোনগুলোর ক্ষরণ কমে যায়, তখন এটি বিপাকীয় হারকে কমিয়ে দেয়, ফলে শরীরের মধ্যে উচ্চ রক্তচাপ কমে যায়।

৩। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়ঃ শরীরের মধ্যেও কম বেশি ক্ষতিকারক কোষ থাকে যা রোজা থাকার মাধ্যমে বৃদ্ধি না পেয়ে নষ্ট হয়ে যায়। এর ফলে, রোগ প্রতিরোধ মূলক কোষগুলো নতুন করে বেঁচে থাকে। আর এভাবে রোগ প্রতিরোধের ক্ষমতা ও বেঁচে যায়।

দেখুনঃ রোজা ও ইফতারের সময়সূচি ২০২২

৪। প্রদাহজনিত রোগ দূর করেঃ অনেক বিশেষজ্ঞদের মতে, জাগার ফলে আলসারেটিভ কোলাইটিস এর মত পেটের প্রদাহের রোগ নিরাময়ের উন্নতি সাধন করে।

৫। ব্লাড সুগার নিয়ন্ত্রণঃ রোজা রাখার মাধ্যমে আমাদের মধ্যে যাদের ডায়াবেটিস জনিত রোগ আছে। তাদের জন্য রোজা রাখার ফায়দা অত্যাধিক। রোজা থাকার মাধ্যমে এটি শরীরের শর্করা নিয়ন্ত্রণে রাখে। এটি গ্লূকোজকে ভেঙ্গে দেয় যাতে শরীরে নতুন করে ইনসুলিন তৈরি হয়। আর ইন্সুলিন তৈরি হলে তো বুঝতেই পারতেছেন ডায়াবেটিস জনিত রোগ থেকে সমাধান সম্পর্কে।

বিশেষ দ্রষ্টব্যঃ রোজা রাখা উপকারী দিকগুলো বলে শেষ করার মত নয়। আমরা আপনাদের কাছে শুধু অল্প কিছু উপকারী দিক নিয়ে আলোচনা করলাম। ইনশাআল্লাহ, অবশ্যই অবশ্যই আমরা 30 টি রোজা রেখে উপরোক্ত উপকারী বিষয়াদি গ্রহণ করব।

সর্বশেষ কথাঃ আমরা চেষ্টা করি আপনাদের মাঝে বিভিন্ন বিষয়াদি সুন্দরভাবে পরিবেশন করতে। ভবিষ্যতে এরকম আরো পোস্ট পেতে চাইলে অবশ্যই আমাদেরকে কল করবেন। সেই সাথে আপনাদের মূল্যবান সময় ব্যয় করার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ।

Maimuna Khan

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *