ক্ষুদ্র ব্যবসার তালিকা – 10 টি সর্বাধিক লাভজনক ক্ষুদ্র ব্যবসার তালিকা

ক্ষুদ্র ব্যবসার তালিকা – 10 টি সর্বাধিক লাভজনক ক্ষুদ্র ব্যবসার তালিকা

ক্ষুদ্র ব্যবসার তালিকা – ক্ষুদ্র ব্যবসার তালিকা গুলো লিখে আপনাদেরকে জানাতে গেলে তা লিখে শেষ করা সম্ভব হবে না। আজকাল আমাদের দেশে ক্ষুদ্র ব্যবসা বলতে বিভিন্ন ধরনের লাভজনক ব্যবসা রয়েছে। তাই আপনি যদি চান তবে আপনিও এই ধরনের ছোটখাট ক্ষুদ্র ব্যবসার মাধ্যমে আপনার কর্ম সংস্থান করতে পারেন। কারণ আমরা আজ দশটি সর্বাধিক লাভজনক ক্ষুদ্র ব্যবসা সম্পর্কে আলোচনা করতে চলেছি।

আপনাদের মধ্যে এখন অনেকেই বিদ্যমান রয়েছে এখানে যারা বেকার রয়েছেন। টাকার অভাবে বা কোন কারনে পছন্দমত বড় ব্যবসা করতে পারছেন না। আপনি আপনার নিজের পায়ে দাঁড়াতে চান বেকার থেকে বেরিয়ে আসার জন্য। তবে আপনি আমাদের এই পোস্টটি দেখতে পারেন। কারণ আমরা এখানে কিভাবে অল্প টাকার বিনিময়ে বিভিন্ন ধরনের লাভজনক ব্যবসা গুলো করা যায় তা সম্পর্কে আমাদেরকে জানাবে।

Link – মেয়েদের ব্যবসার আইডিয়া – সেরা কিছু ঘরে বসে ইনকাম আইডিয়া

ক্ষুদ্র ব্যবসার তালিকা

আপনি যদি টাকার অভাবে বড় কোন ব্যবসা করে উঠতে পারছেন না। তারা চাইলে আপনাদের এই পোস্টটি দেখে আপনি ক্ষুদ্র ব্যবসার বিজনেস আইডিয়া নিতে পারেন। যদিওবা এ ধরনের ব্যবসা গুলো ছোট ধরনের ব্যবসা কিন্তু এর লাভ গুলো দেখলে আপনি অবাক হয়ে যাবেন। আপনার উচিত বড় ব্যবসায়ী আগেই না গিয়ে ছোট ছোট ব্যবসার মাধ্যমে বড় হওয়ার তবে আপনি অল্প টাকার বিনিময় বড় ব্যবসা করে উঠতে পারবে। মানুষতো ছোট থেকে বড় হয় ।আপনিও এই ধরনের ক্ষুদ্র ব্যবসার মাধ্যমে আস্তে আস্তে বড় ব্যবসায়ী হয়ে উঠতে পারবেন। তাই আর দেরি না করে চলুন জেনে নেওয়া যাক সেসকল লাভজনক 10 টি সেরা ক্ষুদ্র ব্যবসার তালিকা গুলো:

1. স্নিকার্স জুতার ব্যবসা আইডিয়া

স্নিকার জুতো হচ্ছে বর্তমানে তরুণদের সবচেয়ে প্রিয় এক ধরনের জুতো। এধরনের জুতো বর্তমানে বেশিরভাগ তরুণরাই পছন্দ করে থাকে। এমনকি এসকল জুতো খুবই বেশি বিক্রি হয়ে থাকে। তাই আপনি চাইলে অল্প কিছু টাকা দিয়ে স্নিকার্স জুতার ব্যবসা শুরু করতে পারেন। এই সকল জুতোগুলো আপনি খুবই কম পাইকারি কিনে আনতে পারবেন। কিন্তু এসকল জুতো খুবই দামে বিক্রি করা যায় বাজারে। তাই আপনি অল্প টাকার বিনিময়ে অনেক টাকা লাভ করতে পারবেন। তাই এ ব্যবসাটি হচ্ছে আপনার জন্য কম টাকায় বেশি টাকা আয় করার একটি সেরা ব্যাবসা আইডিয়া।

2. শীতের জ্যাকেটের ব্যবসা আইডিয়া

বর্তমান সময় হচ্ছে শীতের সময়। তাই এই সময় মানুষ বিভিন্ন ধরনের শীতের পোশাক কিনে থাকে। তাই আপনি চাইলে সময় শীতের পোশাকের ব্যবসা করতে পারেন। যদিওবা এটি একটি সিজন ভিত্তিক ব্যবসা। তবে আপনি এ ব্যবসা করে অনেক টাকা এই সিজনে আয় করতে পারেন। এই ব্যবসায় খুবই অল্প টাকায় শুরু করা যায় এবং খুব ভালো লাভ করা যায়।

এ ব্যবসা করতে হলে আপনি প্রথমে বিভিন্ন ধরনের পাইকারি মার্কেট যেমন নিউ মার্কেট, গাউছিয়া মার্কেট এবং করুটিয়া হাট থেকে পাইকারিভাবে ক্রয় করে তা আপনার আশেপাশের এলাকায় বিক্রি করতে পারেন। আপনার এলাকার আশেপাশে যে কোন বাজারে ছোটমোটো বাজারে অথবা আপনার বাড়ির আশেপাশে আপনি এটি বিক্রি করতে পারেন। বর্তমানে ডেনিম জ্যাকেট এবং ওয়াশের শার্ট তরুণদের জন্য খুবই পছন্দের একটি পণ্য। আপনি চাইলে এগুলো বিক্রি করতে পারেন।

3. মাতৃ ও শিশুদের পণ্যের আইডিয়া

বর্তমানে মানুষ একটি শিশু পালন করতে ও তখন তার মায়ের জন্য অনেক কিছু ক্রয় করে থাকে। শিশুদের বিভিন্ন ধরনের পণ্য এবং তাদের মায়েদের বিভিন্ন ধরনের পণ্য বিক্রি করে অনেক টাকা আয় করতে পারেন। কারণ শিশুদের পণ্যের বর্তমানে চাহিদা প্রচুর। এমনকি শিশুদের সকল পণ্য অনেক কম দামে ক্রয় করে তা অনেক বেশি দামে বিক্রি করা যায়।

এছাড়াও শিশু পালনের জন্য তাদের মায়েরা অনেক ধরনের পণ্য কিনে থাকে এবং তারা নিজেরাও নিজেদের জন্য অনেক পণ্য কিনে থাকে। সে সকল পণ্য তারা খুবই বেশি বেশি কিনে থাকে। তাই আপনি যদি এর সকল প্রোডাক্ট বা পণ্য বিক্রি করেন তবে অনেক টাকা আয় করতে পারবেন আপনি।

4. খেজুর গুড়ের ব্যবসা

খেজুর গুড় হচ্ছে শীতের সময় সবচেয়ে বেশি বিক্রি হওয়া একটি পণ্য। শীতের সময় বাংলাদেশের মানুষ বিভিন্ন ধরনের পিঠা পুলি খেয়ে থাকে। এ ধরনের পিঠা তৈরি করতে সবচেয়ে উৎকৃষ্ট উপাদান হচ্ছে খেজুর গুড়। মানুষ তখন এসকল পিঠাপুলি তৈরি করার জন্য বাজার থেকে বিভিন্ন ধরনের খেজুর গুড় ক্রয় করে থাকে। তাই আপনি চাইলে খেজুরগুড়ের ব্যবসা শুরু করতে পারেন।

খেজুর গুড়ের ব্যবসা করতে আপনাকে স্বল্প কিছু টাকার প্রয়োজন হয়। অল্প কিছু টাকা দিয়ে আপনি দেশের বিভিন্ন খেজুর গুড় তৈরি জায়গা থেকে অল্প দামে খেজুর গুড় কিনে আনতে পারেন। এমনকি সেসকল খেজুর গুড় আপনি আপনার আশেপাশের এলাকায় বা বাজারে খুব লাভজনক দামে বিক্রি করতে পারেন। তাই এ ব্যবসায় ভালো ধরনের লাভ করা যায়।

5. কফি হাউজের ব্যবসা আইডিয়া

বর্তমানে মানুষ প্রচুর পরিমাণে কফি পান করে থাকে। কফি হচ্ছে মানুষের সবচেয়ে প্রিয় একটি গরম পানীয়। এছাড়াও কফি হাউসে বিক্রি হয় বিভিন্ন ধরনের চা। সেসকল চা এবং কফি পান করে মানুষ নিজের শরীরকে সতেজ করে। তাই এসকল কপি এবং চা বর্তমানে প্রচুর বিক্রি হয়। তাই আপনি চাইলে একটি কফি হাউজের ব্যবসা শুরু করতে পারেন। কারণ এটি হচ্ছে এক ধরনের ক্ষুদ্র ব্যবসা। আপনাকে অনেক কম টাকার বিনিময়ে নিয়ে ব্যবসা শুরু করতে পারবেন। আর বর্তমানে চা এবং কফি অনেক বেশি দামে বিক্রি করা যায় যদিও বা এ সকল চা এবং কফি বিক্রি করা দামের তুলনায় কম দামে কেনা যায়। এতে আপনার অনেক ব্যবসায় লাভ হতে পারে। তাই আপনি কফি হাউজের ব্যবসা করে বেকার সমস্যা থেকে বেরিয়ে আসতে পারেন।

আশা করি আপনারা বুঝে গেছেন সকল ক্ষুদ্র ব্যবসা আইডিয়া গুলো সম্পর্কে। যদিও বা আরও বিভিন্ন প্রকারের ক্ষুদ্র ব্যবসা রয়েছে তবে তার মধ্যে এগুলো হচ্ছে সবচেয়ে সেরা ক্ষুদ্র ব্যবসা। কিন্তু এছাড়াও আরো অনেক লাভজনক ক্ষুদ্র ব্যবস্থা রয়েছে। সেগুলো জানতে হলে আমাদের সঙ্গেই থাকুন। উপরে বর্ণিত সকল বিষয় সম্পর্কে আপনার কোন প্রশ্ন থাকলে কমেন্ট এর মাধ্যমে আমাদেরকে জানাবেন। আমরা অতি শীঘ্রই আপনার উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করব। আমাদের সঙ্গে এতোক্ষণ থাকার জন্য আপনাকে অত্যন্ত ধন্যবাদ।

Link – গ্রামের ব্যবসার আইডিয়া – ১০+ ব্যবসার আইডিয়া

Link – ফেসবুকে অনলাইন ব্যবসা

Maimuna Khan

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *