ঈদুল আযহা ২০২৩

ঈদুল আযহা ২০২৩

আসসালামু আলাইকুম, শুরুতেই সকলকে জানাই আমাদের পক্ষ থেকে অগ্রিম ঈদ উল আযহার শুভেচ্ছা। ঈদ-উল-আযহা মানেই যেন এক অন্যরকম আনন্দ। ঈদুল আজহা আসলেই সবাই কোরবানি করার কাজকর্ম নিয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়ে।

তাই আজকে আমরা আপনাদের সামনে ঈদুল আযহা 2022 সম্পর্কিত কিছু কথা বলব। ঈদুল আজহা বা কোরবানির ঈদ আসলেই যেন সবার মনে কোরবানি করার জন্য ব্যস্ততা শুরু হয়ে যায়। সেই ব্যস্ততার মাঝেও কোরবানির ঈদ ঈদুল আযহা সম্পর্কে কিছু তথ্য দিতে আমরা এসেছি আপনাদের কাছে।

ঈদুল আযহা

সকল ইসলাম ধর্মাবলম্বীদের জন্য বছরে দুইটি ঈদ রয়েছে। সেই দুইটি ঈদের মধ্যে ঈদুল আযহা হল একটি। ঈদুল আযহার শাব্দিক অর্থ আসে “ত্যাগ বা উৎসর্গের উৎসব”। সাধারণ মানুষের কাছে এটি কুরবানীর ঈদ নামেও পরিচিত। ঈদুল আযহার দিনে ঈদুল আজহার দুই রাকাত সালাত আদায় করতে হয়।

এছাড়া এই দিনের সবচেয়ে প্রধান কাজ হচ্ছে মহান আল্লাহ তাআলার সন্তুষ্টি লাভের উদ্দেশ্যে, নির্দিষ্ট কিছু পশু জবাই করা বা উৎসর্গ করা। ইসলাম ধর্মে নির্দিষ্ট করে দেয়া 6 টি পশু এই দিনে কুরবানী করা হয়। তাই ঈদুল আজহা আসলে সবাই কোরবানির পশু কেনার জন্য ব্যস্ত হয়ে পড়েন।

কোরবানির ইতিহাস সম্পর্কে বর্ণনা করতে গেলে তা বর্ণনা করে শেষ করা সম্ভব হবে না। কিন্তু যাদের নিসাব পরিমাণ সম্পদ রয়েছে তাদের অবশ্যই কুরবানী করতে হবে। কুরবানী সম্পর্কে বিস্তারিত জানান- কোরবানির ইতিহাস, নিয়ম ও শিক্ষা

ঈদুল আযহা ২০২৩

কোরবানির ঈদ আসলেই সবাই কোরবানি করার পশু ক্রয় করতে ব্যস্ত হয়ে পড়ে। কুরবানীর পশু ক্রয় করার জন্য সবাই ঈদের দিন তারিখ এবং বিভিন্ন বিষয় সম্পর্কে জানতে চেষ্টা করেন। তাই আজকে আমরা আপনাদেরকে ঈদুল আযহা 2022 সম্পর্কে সকল কিছু বলবো।

প্রথমত ঈদুল আযহা এর তারিখ নির্ভর করে চন্দ্র পঞ্জিকার ওপর। অর্থাৎ চাঁদ দেখার উপর নির্ভরশীল ঈদুল আজহা বা কোরবানির ঈদের তারিখ। আরবি জিলহজ্ব মাসের 10 তারিখে ঈদ-উল-আযহা পালন করা হয়ে থাকে। ইংরেজি বছরের কোন দিন ঈদ-উল-আযহা পালিত হবে তা নির্দিষ্ট নয়।

কারণ ঈদ-উল-আযহা প্রতিবছরই আন্তর্জাতিক পঞ্জিকা থেকে 10 থেকে 11 দিন করে এগিয়ে আসে। এর ফলে আন্তর্জাতিক পঞ্জিকা হিসেব করে ঈদুল আজহার তারিখ সবসময় এক থাকেনা। ঈদুল আযহা এর তারিখ সবসময় জিলহজ্ব মাসের চাঁদ দেখার উপর নির্ভর করে।

ঈদুল আযহা ২০২৩ কত তারিখে

ঈদুল আযহার কথা আসলে প্রথমেই মানুষের জানতে চায় তা কত তারিখে অনুষ্ঠিত হতে চলেছে। যদিও ঈদুল আযহার চাঁদ দেখার উপর নির্ভরশীল এবং তা আরবি মাসের ওপর নির্ভর করে। কিন্তু চাঁদ দেখার উপর ভিত্তি করে সেটাকে আন্তর্জাতিক পঞ্জিকা এর মধ্যেও তারিখ ধরা যায়।

সকল হিসেব মিলিয়ে বলা হয়েছে ২০২৩ সালের ঈদুল আযহা জুলাই মাসের 10 তারিখে পালিত হবে। 2022 সালের জুলাই মাসের 9 তারিখ সন্ধ্যা হতে 10 তারিখ সন্ধ্যা পর্যন্ত ঈদুল আযহার । অর্থাৎ বাংলাদেশ 2022 সালের ঈদুল আযহা জুলাই মাসের 10 তারিখে পালিত হবে।

ঈদুল আযহা নামাজের নিয়ম

এবার আসা যাক ঈদুল আযহার নামাজ সম্পর্কে। যেহেতু মুসলমানদের ঈদ বছরে দুই বার এবং তার পাশাপাশি দুই ঈদে ভিন্ন ভিন্ন নিয়মে নামাজ পড়তে হয়। তাই বেশিরভাগ মানুষই ঈদুল আযহার নামাজ কিভাবে পড়তে হয় সে সম্পর্কে অবগত নন।

অনেকেই ঈদুল আযহার নামাজ কিভাবে পড়তে হবে বা এর নিয়ম সম্পর্কে জানতে চেষ্টা করেন। তাদের জন্যই আজকে আমরা ঈদ-উল-আযহা এর নিয়ম সম্পর্কে লিখছি। চলুন নিয়ম সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক।

কোরবানির ঈদের নামাজ দুই রাকাত। এই ঈদের নামাজ সাধারণ নামাজের চেয়ে তেমন একটা ভিন্ন নয়। শুধু এর সাথে অতিরিক্ত ছয় তাকবীর দিতে হয়। প্রথমে ঈদ-উল-আযহা এর নামাজের নিয়ত করতে হবে। এরপর নিয়তে করে” আল্লাহু আকবার” বলে হাত বাধতে হবে ও সানা পাঠ করতে হবে।

সানা পাঠ শেষ হলে আল্লাহু আকবার বলে তিন তাকবীর দিতে হবে। প্রথম দুই তদবিরে হাত উঠিয়ে ছেড়ে দিতে হবে এবং তৃতীয় তাকবীরে হাত বাধতে হবে। এখন সূরা ফাতিহা ও তার সাথে একটি সূরা মিলিয়ে প্রথম রাকাত নামাযের মত করে শেষ করতে হবে।

দ্বিতীয় রাকাতে সাধারণ নামাযের মত সূরা ফাতেহার সাথে একটি সূরা পড়তে হবে। এরপর আবার রুকুতে যাওয়ার পূর্বে “আল্লাহু আকবার” বলে তিন তাকবীর দিতে হবে। তিন তাকবিরে হাত উঠিয়ে ছেড়ে দিতে হবে। চতুর্থবার আল্লাহু আকবার বলে রুকুতে চলে যেতে হবে। এরপর সাধারন নিয়মে নামাজ শেষ করতে হবে। নামাজ শেষ হলে ইমাম সাহেব খুতবা দেবে এবং সেই খুৎবা শোনা হচ্ছে ওয়াজিব।

ঈদুল আযহা নামাজের নিয়ত

ঈদের নামাজের নিয়ত বাংলায় করলেও চলে। এখানে কোন বারাতলা নিয়ম নেই যে আরবীতে নিয়ত করতে হবে। কেউ চাইলে তার নিজের ভাষায় নামাজের নিয়ত করতে পারে। আমরা নিচে আরবিতে ঈদুল আযহা এর নিয়ত ও এর উচ্চারন সহ দেখাচ্ছি।

ঈদুল আযহার নামাজের নিয়ত আরবিতে:
نَوَيْتُ أنْ أصَلِّي للهِ تَعَالىَ رَكْعَتَيْنِ صَلَاةِ الْعِيْدِ الْفِطْرِ مَعَ سِتِّ التَكْبِيْرَاتِ وَاجِبُ اللهِ تَعَالَى اِقْتَضَيْتُ بِهَذَا الْاِمَامِ مُتَوَجِّهًا اِلَى جِهَةِ الْكَعْبَةِ الشَّرِيْفَةِ اللهُ اَكْبَرْ

বাংলা উচ্চারণ: ‘নাওয়াইতু আন উছাল্লিয়া লিল্লাহি তা আলা রাকয়াতাই ছালাতি ঈদিল আযহা মাআ ছিত্তাতি তাকবীরাতি ওয়াজিবুল্লাহি তা আলা ইক্বতাদাইতু বিহাজাল ইমামি মুতাওয়াজ্জিহান ইলা জিহাতিল কাবাতিশ শারীফাতি আল্লাহু আকবার।’

বাংলা অর্থ: আমি ঈদুল ফিতরের দুই রাকাত ওয়াজিব নামাজ অতিরিক্ত ৬ তাকবিরের সঙ্গে এই ইমামের পেছনে কেবলামুখী হয়ে আল্লাহর জন্য আদায় করছি- “আল্লাহু আকবার”।

ঈদুল আযহা ছবি

এবার আপনাদের সামনে আমরা কিছু ঈদ স্পেশাল ছবি শেয়ার করব। ঈদুল আযহা উপলক্ষে কিছু ছবি আপনাদের মাঝে আমরা এখন থেকে চলেছি। চলুন সেই ছবিগুলো দেখে নেয়া যাক।

ঈদুল আযহা ছবি

 

ঈদুল আযহা ছবি

 

ঈদুল আযহা ছবি

সর্বশেষ কথা: এতক্ষন আমাদের সঙ্গে থাকার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ। আমরা প্রতিনিয়ত এধরনের লেখা লিখে থাকি।এধরনের লেখা সম্পর্কে আরো বিস্তারিত জানতে আমাদের সঙ্গেই থাকুন। সকলকে আমাদের পক্ষ থেকে ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা।

Maimuna Khan

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *