দালাল ছাড়া পাসপোর্ট করার নিয়ম

দালাল ছাড়া পাসপোর্ট করার নিয়ম

দালাল ছাড়া পাসপোর্ট করার নিয়ম :-আপনারা হয়তো অনেকেই জানেন না যে দালাল ছাড়া পাসপোর্ট তৈরি করা যায়। আমরা প্রায় বেশিরভাগ মানুষই দালালদের দ্বারায় পাসপোর্ট তৈরি করি। আর বেশিরভাগ দালালরাই আমাদের ধোঁকা দিয়ে থাকে। এবং পাসপোর্ট এর নাম করে টাকা নিয়ে চলে যায়। আপনাদের যেন এই সমস্যা গুলো তে আর না পড়তে হয় তাই আমি আপনাদের জন্য নিয়ে এসেছি এমন একটি পোস্ট যা তাদের জন্য খুবই প্রয়োজনীয়।

যদি আপনারা এই সমস্যা থেকে বা দালাল ছাড়া পাসপোর্ট তৈরি করতে চান। তাহলে আমার দেওয়া পোস্টটি ভালভাবে পড়ুন। কারণ আমি আজকে আপনাদের সাথে দালাল ছাড়া পাসপোর্ট তৈরি করার নিয়ম নিয়ে আলোচনা করব। আর দেরি না করে জেনে নেয়া যাক কিভাবে দালাল ছাড়া পাসপোর্ট তৈরি করা যায়।

পাসপোর্ট তৈরি করতে ফরম পূরণের নিয়ম

প্রথমেই জেনে রাখা ভালো যে পাসপোর্ট তৈরি করার আগে আপনাকে একটি আবেদন ফরম পূরণ করতে হবে। তবে হ্যাঁ আবেদন ফরম পূরণ করার আগে ফরম উল্লিখিত নির্দেশনাবলী ভালোভাবে পড়বে। নির্দেশনা অনুযায়ী কাগজপত্র বা দলিলপত্র সংযুক্ত করবেন। ব্যাংকে পাসপোর্টের নির্ধারিত ফি প্রদান করে ব্যাংক ফিউচার আবেদন ফরমের সঙ্গে সংযুক্ত করবেন। তারপর আবেদন ফরম আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসে জমা দিবেন।

দালাল ছাড়া পাসপোর্ট তৈরি করতে অনলাইন খরচ

অনলাইনে পাসপোর্ট তৈরি করলেও আপনার সামান্য কিছু খরচ হবে। তবে চিন্তার কোন কারণ নেই। অনলাইন আপনাকে কখনো ধোঁকা দিবে না। অনলাইন খরচ এর মূল কারণ হলো ফরম পূরণ করার জন্য টাকা জমা দেওয়ার তারিখ এবং জমাদানের রিসিটের নম্বর উল্লেখ করার প্রয়োজন হয়। মূলত এর কারনে অনলাইন ফরম পূরণের আগে টাকা জমা দিতে হয়।প্রয়োজন হয়। রেগুলার ফি ৩ হাজার ৪৫০ টাকা এবং জরুরি পাসপোর্ট করতে হলে তার ফি ৬ হাজার ৯০০ টাকা। আপনি টাকাগুলো রকেট, বিকাশ শিওর ক্যাশ জমা দিতে পারবেন।

অনলাইনে পাসপোর্ট তৈরি করতে ফরম পূরণের নিয়ম

অনলাইনে ফরম পূরন খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। মনোযোগ সহকারে আপনাকে ফরমটি পূরণ করতে হবে। কারণ ফরম পূরণ ভুল হলে সমস্যা সৃষ্টি হবে।

  • ফরম পূরণের ক্ষেত্রে আপনাকে প্রথমে পাসপোর্ট অফিসের সাইটে যেতে হবে।
  • এরপর “I have read the above information and the relevant guidance notes” টিকচিহ্ন দিয়ে “continue to online enrollment” এ ক্লিক করতে হবে।
  • আপনার নাম ও ব্যক্তিগত তথ্যাদি দিতে হবে। তবে খেয়াল রাখতে হবে এই তথ্যগুলো যেন আপনার জাতীয় পরিচয় পত্রের মিলে যায় এবং আপনার মেইল এড্রেস ও মোবাইল নাম্বার অবশ্যই আপনি যেটি ব্যবহার করেন সেটি দিবেন। কারণ ভুল তথ্য দিলে সমস্যা হবে ।
  • টাকা জমা দেওয়ার তারিখ এবং রিসিট নম্বর নিতে হবে।
  • পাসপোর্ট টাইপ ”ordinary” সিলেক্ট করতে হবে এবং যে অংশগুলো লাল স্টার দাঁড়া মার্ক করা রয়েছে তা অবশ্যই পূরণ করতে হবে।
  • Delevery type অংশে 30 দিনের জন্য Regularএবং 15 দিনের জন্য Express সিলেক্ট করতে হবে।

ফরমটি পূরণ করা শেষ হলে পুনরায় চেক করে দেখে নিবেন যাতে কোন ভুল না হয়। এবার আপনি ফরমটি সাবমিট করতে পারবেন।

অনলাইন পাসপোর্ট ফরমের প্রিন্ট এবং সত্যায়ন

আপনার মেইলে আশা পিডিএফ কপির 2 কপি কালার প্রিন্ট করতে হবে। আবেদনকারীর স্বাক্ষর করার স্থান স্বাক্ষর করতে হবে। এবার আপনার চার কপি ছবি, জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি এবং পাসপোর্ট ফরম নিয়ে পরিচিত কোনো কর্মকর্তার কাছ থেকে আপনার পাসপোর্ট সত্যায়িত করে নিতে হবে।

অনলাইন পাসপোর্ট ফরম রিচেক

আপনার সত্যায়িত ছবি এবং ব্যাংকের রিসিট আটা দিয়ে আপনার ফরমে যুক্ত করতে হবে। জাতীয় পরিচয়পত্রের সত্যায়িত কপিটও যুক্ত করতে হবে। শিক্ষার্থী হিসেবে আবেদন করতে চাইলে আপনার স্টুডেন্ট আইডি কার্ডের কপি সত্যায়িত করে ফরম্ এ যুক্ত করতে হবে। তাহলেই আপনার ফরমটি জমা দেওয়ার জন্য প্রস্তুত।

Link – জীবন নিয়ে উক্তি, ফেসবুক স্ট্যাটাস

পাসপোর্ট অফিসের ফরম জমা এবং ছবি তোলা

 ফরম পূরণের 15 দিনের মধ্যে ফরমের প্রিন্ট কপি, সত্যায়িত ছবি, জাতীয় পরিচয় পত্র এবং স্টুডেন্ট আইডি কার্ডের ফটোকপি নিয়ে পাসপোর্ট অফিসে গিয়ে এবং ছবি তোলার মাধ্যমে আপনি আপনার পাসপোর্ট পেয়ে যাবেন।

Maimuna Khan

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *