অনলাইনে ট্রেনের টিকেট কাটার নিয়ম ২০২২

অনলাইনে ট্রেনের টিকেট কাটার নিয়ম ২০২২

শুরুতেই সকলকে জানাই আসসালামু আলাইকুম। আজকে আমাদের লেখাটি হতে চলেছে সকল ভ্রমণ পিপাসু বন্ধুদের জন্য। যারা বিভিন্ন জায়গায় ভ্রমণ করেন তারা হয়তো ট্রেনের টিকিট খে কেটেছেন। ট্রেন স্টেশনে গিয়ে কাউন্টার থেকে ট্রেনের টিকিট কাটা কতটা কষ্ট হয় সেটা আপনারা সকলেই জানেন। সেই সমস্যার সমাধান হচ্ছে অনলাইনে টিকিট কাটা।

অনেকেই বিভিন্ন জায়গায় ভ্রমণ করেন। কিন্তু ট্রেনে ভ্রমণ করার জন্য ট্রেনের টিকেট কাটতে হয়। সেই ট্রেনের টিকিট অনলাইনে কাটার নিয়ম সম্পর্কে আলোচনা করব। চলুন তাহলে অনলাইনে ট্রেনের টিকিট কাটার নিয়ম নিয়ে শুরু করা যাক।

অনলাইনে ট্রেনের টিকেট কাটার নিয়ম

একটা সময় ছিল যখন কোথাও ট্রেনে যেতে হলে ট্রেন স্টেশনে গিয়ে টিকিট কাটতে হয়েছে। সময়মতো ট্রেনের টিকিট পাওয়া যায় না বলে অগ্রিম গিয়ে ট্রেন স্টেশন থেকে টিকিট কিনে আনতে হয়েছে। তখন অনেক সময় টাকা ব্যয় হতো এই ট্রেনের টিকেট কাটতে গিয়ে। তারে বিকল্প পদ্ধতি হিসেবে চালু হয়েছে অনলাইনে ট্রেনের টিকেট কাটা।

অনলাইনে ট্রেনের টিকেট কাটার জন্য আপনাকে ট্রেন স্টেশনে যেতে হয় না। অনলাইনে মাধ্যমে বাড়িতে বসেই টাকা পেমেন্ট করে ট্রেনের টিকেট কাটা যায়। তারপর নির্দিষ্ট দিনে স্টেশনে গিয়ে শুধু বললেই আপনাকে আপনার টিকিট হাতে দিয়ে দেওয়া হয়। এতে করে আগে থেকে বাড়িতে বসেই ট্রেনের টিকেট কাটা যায়। এতে সময় ও টাকা দুটোই ব্যয় কম হয়।

Link – ঢাকা টু চট্টগ্রাম ট্রেনের সময়সূচী ও টিকেট মূল্য

অনলাইনে ট্রেনের টিকিট ক্রয়

এজন্য আমাদের দেশে রেলপথ মন্ত্রণালয় অনলাইনে ট্রেনের টিকিট কাটার ব্যবস্থা চালু করেছে। যার মাধ্যমে আপনি খুব সহজেই যেকোন জায়গা থেকে ট্রেনের টিকেট কাটতে পারবেন। সেখান থেকে বাংলাদেশের যেকোনো জায়গায় রেলপথে যাওয়ার ট্রেনের টিকিট ক্রয় করা যায়। এবার আমরা আপনাদেরকে সেখান থেকে টিকিট ক্রয় করার পদ্ধতি জানাবো।

অনলাইনে ট্রেনের ই-টিকেট কাটার নিয়ম ২০২৩

অনলাইনে ট্রেনের টিকিট কাটার জন্য বিভিন্ন নিয়ম কারণ মেনে কাজ করতে হয়। যেটা অনেকেই বুঝতে পারেনা। সেই টিকেট কাটতে গিয়ে অনেক সময় ঝামেলায় পড়ে যায়। বিভিন্ন সময়ে অনেকেই ভিন্ন জায়গার টিকিট কেটে ফেলে। আবার অনেকেই টিকিটের টাকা দিতে সমস্যা বাজিয়ে ফেলে।

সেই সকল সমস্যার সমাধান হলো এই টিকিট কাটার নিয়ম সম্পর্কে ভালো ধারণা থাকা। যদি কেউ তা সম্পর্কে ভালো ধারণা থাকে তবে খুব সহজেই টিকিট কাটতে পারবে। তাই আমরা আপনাদেরকে এখন অনলাইনের মাধ্যমে কিভাবে টিকিট কাটতে হয় সে সম্পর্কে ধারনা দেয়ার চেষ্টা করব।

অনলাইনে ট্রেনের টিকেট কাটার সময়

অনলাইনে টিকিট কাটার জন্য এরকমভাবে সময় ধরে দেওয়া হয়নি। কেউ চাইলে যেকোনো সময় এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইট বা অ্যাপস থেকে টিকিট কিনতে পারে। তবে হ্যাঁ ঈদের সময় অথবা হিন্দুদের পূজার সময় অনেক সময় টিকেট কম পড়ে যায়। তখন বেশিরভাগ মানুষ আগে থেকে টিকিট কেটে রেখে দেয়। যার কারণে তখন টিকিট পাওয়া কষ্টকর হয়ে দাঁড়ায়।

তাই এ সকল উৎসব মুখর সময়ের আগেই অগ্রিম ভাবে টিকেট কিনে ফেলা উচিত। এসকল উৎসব সামনে আসলে কোথাও যেতে হলে অবশ্যই কমপক্ষে 10 দিন আগে অগ্রিম টিকিট কাটতে হবে। এতে করে আপনার ভ্রমণে কোন ব্যাঘাত ঘটবে না। তাই অবশ্যই কোথাও যেতে হলে অনলাইনের মাধ্যমে অগ্রিম টিকিট কেটে রাখবেন। সেটাই হচ্ছে অনলাইনে ট্রেনের টিকেট কাটার উপযুক্ত সময়।

অনলাইনে ট্রেনের টিকেট কেনার নিয়ম

চলুন তাহলে একবার ভালো করে দেখে নেয়া যাক অনলাইনে ট্রেনের টিকেট কাটার নিয়ম সম্পর্কে

১: প্রথমে যেকোন ব্রাউজারে গিয়ে www.eticket.railway.gov.bd-এ যেতে হবে

২: ওয়েবসাইটে আপনার যাবতীয় তথ্য দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। যাবতীয় তথ্যাদি এর মধ্যে একটি হল ইমেইল ও অন্যটি হল এর পাসওয়ার্ড চাইবে। সেই পাসওয়ার্ড, ইমেইল দিতে হবে।

৩: এরপর পরে আপনার অ্যাকাউন্টে লগ ইন করার জন্য একাউন্টের লগইন পৃষ্ঠায় যান এবং আপনার (ব্যবহারকারীর) নাম (ইমেইল) এবং পাসওয়ার্ড টাইপ করুন।

৪: ড্রপ-ডাউন এ দেখানো মেনু থেকে “ক্রয়” নির্বাচন করুন।

৫: স্টেশন থেকে দূরত্ব, তারিখ, ট্রেনের ক্লাস এবং প্রাপ্তবয়স্ক এবং বাচ্চাদের আসন সংখ্যা লিখুন।

৬: অনুসন্ধানে ক্লিক করুন, এবং আপনি আপনার প্রদত্ত দিনের এবং নিয়মিত ট্রেনের জন্য উপলব্ধ আসনের একটি তালিকা পাবেন।

৭: একটি ট্রেন বেছে দিতে হবে এবং ম্যানুয়ালি বা স্বয়ংক্রিয়ভাবে আপনার সিট রিজার্ভ হয়ে যাবে।

অনলাইনে ট্রেনের টিকেট কাটার পেমেন্ট প্রক্রিয়া

অনলাইনে ট্রেনের টিকিট কাটার জন্য টিকেট বুকিং করার পর এবার আসি এর টাকা দেওয়ার পালা। টাকা পেমেন্ট করার মাধ্যমে আপনি আপনার টিকেটটি পুরোপুরি কনফার্ম করতে পারবেন। অনেকেই বুঝতে পারে না কিভাবে টিকিট কাটার জন্য পেমেন্ট করতে হবে। তাই আমরা এখন টিকিট কাটার পর সেই পেমেন্ট করা নিয়ে আলোচনা করব।

কিভাবে অনলাইনে টিকিট কাটার পর সেই টিকিটের টাকা পেমেন্ট করবেন। তার সম্পর্কে ভালোভাবে জানতে নিচের সকল পদক্ষেপ গুলো ভালোভাবে লক্ষ্য করুন –

১: আপনার সিট বুক করার পরে, সেখান থেকে পেমেন্ট অপশনে যেতে হবে। সেখান থেকে আপনার পেমেন্ট করার বিভিন্ন ব্যাংক মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে সিলেক্ট করতে হবে।

২: এর পরে, আপনি বিভিন্ন ব্যাংকের নাম এবং লোগো দেখতে পাবেন। যেমন – ডিবিবিএল, ব্র্যাক ব্যাংক, সাথে মোবাইল ব্যাংকিং যেমন – বিকাশ, রকেট, এবং কার্ড সেবা – ভিসা, মাস্টার কার্ড এবং আরও অনেক কিছু দেখতে পাবেন।

৩: সেখান থেকে একটি ব্যাংকের পেমেন্ট অপশন সিলেক্ট করুন অথবা বা মোবাইল ব্যাংকিং বেছে নিন যেখান থেকে টিকেটের অর্থপ্রদান করবেন।

৪: আপনার অ্যাকাউন্ট নম্বর প্রবেশ করার পরে নিশ্চিত করুন এ ক্লিক করতে হবে।

৫: আপনার ব্যাংক অ্যাকাউন্টের নিবন্ধিত মোবাইল নম্বরে একটি নিরাপত্তা কোড (OTP কোড) পাঠানো হবে।

৬: ওটিপি কোড প্রবেশ করান এরপর আপনার অ্যাকাউন্টের পিন লিখুন।

৭: আপনার টিকেট কেনার জন্য, নিশ্চিত করুন এ ক্লিক করুন।

Link – বিকাশে ট্রেনের টিকিট কাটার নিয়ম

আশা করি আপনারা সকলেই ট্রেনের টিকেট কাটা সম্পর্কে যাবতীয় সবকিছু বুঝে গেছে। আমরা যথেষ্ট চেষ্টা করেছি আপনাকে এ বিষয়ে বোঝানোর জন্য। যদি এখান থেকে কোনো কিছু সম্পর্কে জানতে চাই আপনি কমেন্ট করে জানাতে পারেন। লেখাটি ভালো লাগলে অবশ্যই বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করে দেবেন। এতক্ষন আমাদের সঙ্গে থাকার জন্য আপনাকে আমাদের পক্ষ থেকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

আরো পড়ুন:

ঢাকা টু ময়মনসিংহ ট্রেনের সময়সূচী ও টিকেট মূল্য

ঢাকা টু রাজশাহী ট্রেনের সময়সূচী ও টিকিট মূল্য

Maimuna Khan

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *