বিকাশ মালিকানা পরিবর্তনের নিয়ম 2023

বিকাশ মালিকানা পরিবর্তনের নিয়ম 2023

বর্তমানে বাংলাদেশের প্রায় 60% মানুষ বিকাশ ব্যবহার করে থাকে। বিকাশ ব্যবহার করার মাধ্যমে মানুষের টাকা লেনদেনের বিষয়টি অনেক সহজ হয়ে দাঁড়িয়েছে। বিকাশে টাকা থাকার ফলে এখন মানুষকে কোন জায়গায় গিয়ে তেমন বিপদে পড়তে হয় না। অনেক সময় আমরা আমাদের প্রয়োজনে বিকাশ মালিকানা পরিবর্তন করে থাকি। আজকে আমি বিকাশ মানি করার পরিবর্তন নিয়ে আলোচনা করব। আজকের পোস্টটি তাদের জন্য যারা বিদেশ মালিকানা পরিবর্তন করতে চান।আমি এখানে বিস্তারিতভাবে বিকাশ মালিকানা পরিবর্তনের নিয়ম তুলে ধরেছি। তাই সম্পূর্ণ পোস্টটি ভাল করে পড়ুন।

বিকাশ মালিকানা পরিবর্তনের নিয়ম

আপনি কি বিকাশ মালিকানা পরিবর্তন করতে যাচ্ছেন? আপনি যদি বিকাশ মালিকানা পরিবর্তন করতে চান তাহলে আপনি দুই ভাবে বিদেশ মালিকানা পরিবর্তন করতে পারবেন। নিচে নামিয়ে নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব। অনেকেই বিকাশ মালিকানা পরিবর্তন করে থাকে তাদের নিজেদের প্রয়োজনে। মালিকানা পরিবর্তনের নিয়ম দেয়া হল।

  1. এক সিম থেকে অন্য সিমে বিকাশ মালিকানা পরিবর্তন।
  2. এনআইডি কার্ড থেকে অন্য এনআইডি কার্ড বিকাশ মালিকানা পরিবর্তন।

আপনি চাইলে এই পদ্ধতিতে বিকাশ মালিকানা পরিবর্তন করতে পারবেন। আপনি যদি সিম থেকে অন্য সিমের মালিকানা পরিবর্তন করতে চান তাহলে আপনাকে উভয় সিম নিয়ে বিকাশ কাস্টমার কেয়ারে যেতে হবে। তবে তবে এক সিম থেকে অন্য সিমে বিকাশ এর মালিকানা পরিবর্তন করতে অবশ্যই আপনার সিমের বিকাশ ব্যালেন্স শূন্য হতে হবে। আপনি যদি বিকাশ ব্যালেন্স 0 না করেন তাহলে আপনার টাকা কেটে নেয়া হবে।

আবার আপনি এনআইডি কার্ড থেকে এনআইডি কার্ড বিকাশ মালিকানা পরিবর্তন করতে পারবেন। এর জন্য আপনাকে উভয়ে এনআইডি কার্ড সাথে নিয়ে বিকাশ কাস্টমার কেয়ারে যেতে হবে। সেখানে যাওয়ার পর তারা আপনার বিকাশ মালিকানা পরিবর্তন করে দেবে। অনেকে আছে যারা 16247 এ নাম্বারে কল করে থাকে। এটা বোকামি ছাড়া আর কিছুই না। এভাবে বিকাশ মালিকানা পরিবর্তন করা যায় না।

সিম মালিকানা পরিবর্তন করে বিকাশ মালিকানা পরিবর্তনের নিয়ম

আপনি চাইলে সিম মালিকানা পরিবর্তন করে বিকাশ মালিকানা পরিবর্তন করতে পারবেন। এর জন্য আপনাকে প্রথমে সিম মালিকানা পরিবর্তন করতে হবে। সিম মালিকানা পরিবর্তন করার জন্য প্রথমে আপনার যে সিম সিমের কাস্টমার কেয়ারে যান। সেখানে অবশ্যই আপনাকে উক্ত সিম আপনার এনআইডি কার্ড নিয়ে যেতে হবে।

আপনার এনআইডি কার্ড নিয়ে গেলে সেখানে আপনার সিম মালিকানা পরিবর্তন করে দেয়া হবে। পরিবর্তন করার পরে এমনিতেই মালিকানা পরিবর্তন হয়ে যাবে। তবে মনে রাখতে হবে মালিকানা পরিবর্তন করার পূর্বে আপনার বিকাশ একাউন্ট 0 থাকতে হবে। তা না হলে আপনার ব্যালেন্স কেটে নেয়া হবে।

বিকাশ এনআইডি পরিবর্তনের নিয়ম

বিকাশের NID পরিবর্তনের মাধ্যমে বিকাশ একাউন্টের মালিকানা পরিবর্তন করা যায়। আপনি যদি বিকাশ একাউন্টের মালিকানা পরিবর্তন করতে চান তাহলে এই পদ্ধতি অনুসরণ করতে পারেন। এর জন্য আপনার শুধু এনআইডি পরিবর্তন করলেই হবে। প্রথমে আপনার এনআইডি কার্ড ও বিকাশ একাউন্ট খোলার জন্য ব্যবহৃত এনআইডি কার্ড নিয়ে বিকাশ হেল্প সেন্টারে যেতে হবে।

সেখানে যাওয়ার পর আপনাকে উক্ত এনআইডি কার্ডের মাধ্যমে আপনার অ্যাকাউন্টের এনআইডি কার্ড নাম্বার পরিবর্তন করে দেয়া হবে। এভাবে এনআইডি কার্ডের মাধ্যমে বিকাশ মালিকানা পরিবর্তন করা যায়। তবে বিকাশ মালিকানা পরিবর্তনের সময় আপনার একাউন্ট ব্যালেন্স শূন্য করে নেবেন। তা না হলে আপনার একাউন্ট থেকে ব্যালেন্স কেটে নেওয়া হবে। তাই আগে থেকেই সতর্ক হোন।

Link – বিকাশে ট্রেনের টিকিট কাটার নিয়ম

বিকাশ নাম্বার পরিবর্তন

অনেকে আছে যারা তাদের বিকাশ নাম্বার পরিবর্তন করতে চাই? বিকাশ নাম্বার পরিবর্তন করা খুবই সহজ একটি বিষয়। আপনারা যারা আমার পোস্টটি সম্পূর্ণরূপে ভালো করে পড়েছেন , তারা খুব সহজেই বুঝতে পেরেছেন কিভাবে বিকাশ নাম্বার পরিবর্তন করা যায়। যাদের একটু অসুবিধা হয়েছে তারা পোস্টটি আবার ভাল করে পড়ুন। আশা করি আপনি আপনার প্রশ্নের উত্তর পেয়ে যাবেন।

Maimuna Khan

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *