অনলাইনে পণ্য বিক্রি – প্রতিদিন 5000 টাকা আয় করুন

অনলাইনে পণ্য বিক্রি – প্রতিদিন 5000 টাকা আয় করুন

অনলাইনে পণ্য বিক্রি – আপনি যদি অনলাইনে পণ্য বিক্রি করার চিন্তাভাবনা করে তবে এই পোষ্ট টি আপনার জন্য। কেননা আমরা এই পোস্টটিতে আলোচনা করতে চলেছি কিভাবে আপনি আপনার পণ্য অনলাইনের মাধ্যমে বিক্রি করে। কারণ বর্তমানের যুগ হচ্ছে অনলাইনের আর এই যুগে সবাই তাদের ব্যবসা অনলাইনের মাধ্যমে চেষ্টা করছে।

অনলাইনের মাধ্যমে খুব সহজে ব্যবসায়ের বিভিন্ন জিনিসপত্র কেনা বেচা করা যায়। সে সকল জিনিসপত্র আপনি খুব সহজে এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় দূরের একজন মানুষের কাছে কেনাবেচা করতে পারেনি অনলাইনের মাধ্যমে। তবে অনলাইন মাধ্যমে বেশিরভাগ মানুষ ব্যবসায়ী মানুষ তারা নিজেদের ব্যবসা এর জিনিসপত্র বিক্রি করতে চায়।

Link – মেয়েদের জন্য অনলাইন জব

কিন্তু পরিপূর্ণ জ্ঞান না থাকার কারণে তারা তাদের ব্যবস্থাকে অনলাইনে আনতে পারেন। তাই আজ আমরা আপনাকে দেখাবো কিভাবে আপনি আপনার ব্যবসা অনলাইনে করতে পারবে। এর ফলে আপনি আপনার ব্যবসা খুবই তাড়াতাড়ি উন্নতি করে আপনার ব্যবসাকে একটি বড় ই-কমার্স সাইটের করতে পারবেন।

অনলাইনে পণ্য বিক্রি

অনলাইনের মাধ্যমে পণ্য বিক্রি করার জন্য বিভিন্ন ধরনের পন্থা রয়েছে। সে সকল পন্থাগুলো আমাদের সবারই জানা নেই। তাই সে সকল পন্থাগুলো জানতে হলে আমাদের সঙ্গেই থাকুন। তবেই আপনি অনলাইনের মাধ্যমে আপনার ব্যবসা এগিয়ে নিয়ে যেতে পারবেন। অনলাইনে ব্যবসা করতে হলে বা পণ্য বিক্রি করতে হলে আপনাকে যে সব বিষয়গুলো জানতে হবে সে সকল বিষয়গুলো নিচে দেওয়া হল:

অনলাইনে পণ্য বিক্রি করার লাভ

অনলাইনের মাধ্যমে পণ্য বিক্রির ব্যবসা শুরুর আগে আমরা প্রথমেই বলে নেই এ সকল ব্যবসায়ী আপনাদের কি লাভ হবে। অনলাইনের এই ব্যবসা করতে হলে আপনাকে অবশ্যই এর লাভ গুলো সম্পর্কে জানতে হবে। অনলাইনের মাধ্যমে পণ্য বিক্রি করে ব্যবসা শুরু করলে বিভিন্ন লাভ রয়েছে। সেসকল লাভ গুলো নিচে ধাপে ধাপে দেওয়া হল।

প্রথমত অনলাইনে ব্যবসা করলে আপনার ইনভেস্টমেন্ট কম হলেও চলে। অনলাইনে ব্যবসা করলে আপনার দোকান ভাড়া করতে হবে না। এছাড়াও অনলাইনের মাধ্যমে আপনি অল্পকিছু টাকা দিয়ে কিছু পণ্য কিনে তাই বিক্রি করে আস্তে আস্তে আপনার ব্যবসা বাড়াতে পারবে। এটাই হচ্ছে অনলাইনে ব্যবসার প্রথম সুবিধা ইনভেসমেন্ট।

অনলাইনের মাধ্যমে ব্যবসা করে আপনি দেশের যেকোনো প্রান্ত থেকে আপনার গ্রাহক পেতে পারে। এতে কোন সীমাবদ্ধ কোন এরিয়া বা জায়গা নেই। দেশের যেকোনো প্রান্ত থেকে আপনাকে এসে অর্ডার করতে পারবে তার পছন্দনীয় প্রোডাক্টটি। আপনি তার সাথে কথা বলে তাকে সেই পণ্যটি দিয়ে দিতে পারবেন খুব সহজে।

অনলাইনে ব্যবসা করলে আপনি যেকোনো জায়গা থেকে আপনার এই ব্যবসাটি অপারেট করতে পারবে। এর জন্য আপনার নির্দিষ্ট কোন জায়গার প্রয়োজন হবে না বা বাড়ি কি দোকানের প্রয়োজন হবে না। ফলে আপনি যখন যেখানেই থাকুন না কেন আপনার ব্যবসা চলতে থাকবে।

অনলাইনের মাধ্যম গুলো ব্যবহার করে ব্যবসা করলে আপনি 24 ঘন্টায় অর্ডার পাবেন। কারণ এসকল অনলাইনে পণ্য বিক্রির ব্যবসা সব সময় অপারেট হয়ে থাকে অনলাইনের মাধ্যমে। এর ফলে আপনি সব সময় অর্ডার পেতেই থাকবে।

অনলাইনের মাধ্যমে ব্যবসা করলে গ্রাহকরা তাদের নিয়ে ভালো তাহলে সে আপনাকে ভালো রেটিং দেবে। এর ফলে অন্যান্য গ্রাহকরাও আপনার প্রতি আগ্রহ দেখাবে। ফলে আপনার পণ্য আরো ভালো বিক্রি হবে।

কিকি মাধ্যমে অনলাইনে নিজের পণ্য বিক্রি করবেন

অনলাইনে পণ্য বিক্রি করার বিভিন্ন মাধ্যম রয়েছে। সেসকল মাধ্যমগুলোর মধ্যে কিছু উল্লেখযোগ্য মাধ্যম সম্পর্কে আমরা আপনাদেরকে ধারণা দেবো। সেই ধারণা গুলো নিয়ে আপনিও শুরু করতে পারেন আপনার নিজের অনলাইনে পণ্য বিক্রির ব্যবসা। তো চলুন আর দেরি না করে অনলাইনে পণ্য বিক্রি করার সকল মাধ্যমগুলো জেনে নেওয়া যাক।

Daraz মার্কেটপ্লেস এর মাধ্যমে

দারাস হচ্ছে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় একটি অনলাইন মার্কেটপ্লেস। আপনি চাইলে এখানে মার্কেটপ্লেসে একটি অ্যাকাউন্ট খুলে সেখানে আপনার পণ্যের দিতে পারে। দারাজ থেকে সেই পণ্যটি অর্ডার করলে সে অর্ডার টি আপনি পাবেন।

তারপর সেই অর্ডারটি আপনি পুরোপুরি কমপ্লিট করে দারাজের হাতে তুলে দেবেন এবং সেটি গ্রাহকের হাতে তুলে দেবে। এখানে সম্পূর্ণ টাকা লেনদেন দারাজ কমপ্লিট করে থাকে। এতে আপনার কোন টাকা নষ্ট হওয়ার রিস্ক নেই। তাই আপনি নিঃসন্দেহে এখানে আপনার পণ্য বিক্রি করতে পারে।

তবে একটা বিষয় খেয়াল রাখতে হবে আপনার পণ্যটি যেন ভাল হয়। কারণ এখানে মানুষ পণ্য ক্রয় করে সেখানে আবার রেটিং দিতে পারে। রেটিং ভালো হলে আপনি পণ্য আরো বেশি বিক্রি করতে পারবেন আর রেটিং খারাপ হলে আপনার পণ্য কেউ কিনবে না। তাই আপনি সবসময় চেষ্টা করবেন ভালো পণ্য দিয়ে গ্রাহককে আকৃষ্ট করা। এতে আপনার ব্যবস্থাটি খুবই তাড়াতাড়ি উন্নতি লাভ করবে।

Facebook মার্কেটপ্লেস এর মাধ্যমে

ফেসবুক মার্কেটপ্লেস হচ্ছে অনলাইনে ব্যবসা করার সবচেয়ে সহজ একটি মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রোডাক্টটির একটি ছবি তুলে এবং তার দাম লিখে ফেসবুক মার্কেটপ্লেসে এড দিতে পারেন। সেই প্রোডাক্টটি অর্ডার করলে সেটি আপনি বিক্রি করে দিতে পারবেন তাঁর কাছে।

ফেসবুক মার্কেটপ্লেসে প্রথমে আপনাকে একটি একাউন্ট ক্রিয়েট করতে হবে। তারপর সে একাউন্টের মাধ্যমে আপনার বিক্রিত পণ্য টির একটি ছবি তুলে তার দাম লিখে সেখানে দিতে হবে। সেই পণ্যটি কারো কাছে পছন্দ হলে সে ওই পণ্যটি আপনাকে অর্ডার করবে।

সেজন্য আপনার সাথে যোগাযোগ করে পণ্যটির দাম ফিক্সড করবে এবং কোথায় পাঠাতে হবে সে ঠিকানা দেবে। তারপর আপনাকে সেই ঠিকানায় কুরিয়ারের মাধ্যমে পৌঁছে দিতে হবে এবং সে আপনাকে তার পরিবর্তে টাকা দিয়ে দেবে। এভাবে আপনি আপনার অনলাইন পণ্য বিক্রির ব্যবসা ফেসবুক মার্কেটপ্লেসের মাধ্যমে বড় করতে পারবে।

ই-কমার্স ওয়েবসাইট এর মাধ্যমে

আপনি চাইলে আপনার নিজের একটি ই-কমার্স ওয়েবসাইট খুলে ও তাতে আপনার পণ্য বিক্রি করতে পারেন। তবে ই-কমার্স ওয়েবসাইট এ পণ্য বিক্রি করার জন্য আপনাকে প্রচুর পরিশ্রম করতে হবে এবং একটি সাইট দাঁড় করাতে হবে। ফলে এখানে একটু সময় লাগে পণ্য বিক্রি করতে।

কিন্তু আপনি যদি একবার আপনার ওয়েবসাইটটি কে ভালো ভাবে দাঁড় করিয়ে ফেলতে পারেন এবং মানুষের কাছে জনপ্রিয় করে ফেলতে পারেন তখন আপনার ব্যবসা খুব ভালোভাবেচলতে শুরু করবে। ই-কমার্স ওয়েবসাইট একবার ভালোভাবে মানুষের কাছে বিশ্বস্ত তা অর্জন করতে পারলে মানুষ তখন সেখান থেকে অর্ডার করে। ফলে আপনি এই ব্যবসা করে প্রচুর পরিমাণে লাভ করতে পারবে।

কিন্তু এর পেছনে একটু ভালো রকমের পরিশ্রম করতে হবে আপনাকে। আপনি যদি ভালো পরিশ্রম পড়তে পারেন এবং হালকা কিছু ইনভেস্ট করতে পারেন আপনার এই ব্যবসায় তবে আপনি আপনার এই ই-কমার্স ওয়েবসাইট টির মাধ্যমে আপনার ব্যবসা অনেক বড় করতে পারবেন। তাই আপনি যদি চান তবে আপনি কমার্স ওয়েবসাইট এর মাধ্যমেও অনলাইনে পণ্য বিক্রি করতে পারেন।

YouTube এর মাধ্যমে

ইউটিউব এর মাধ্যমে প্রচুর পরিমাণে অনলাইনে পণ্য বিক্রি করা যায়। আপনি চাইলে ইউটিউবে আপনার পণ্যটি ভালোভাবে রিভিউ একটি ভিডিও তৈরি করতে পারেন। সেই পণ্যটিঅন্যরা দেখে আপনাকে অর্ডার করতে পারেন। তখন সেই পণ্যটি আপনি নিজ দায়িত্বে তাদের ঠিকানা নিয়ে তাদেরকে কুরিয়ারের মাধ্যমে পৌঁছে দেবেন।

তখন তারা আপনাকে অনলাইনের মাধ্যমে টাকা পেমেন্ট করে দেবে। ইউটিউব এর মাধ্যমে অনলাইনে পণ্য বিক্রি অনেকটা সহজ কিন্তু একটু সময় সাপেক্ষ। তবে আপনি চাইলে ইউটিউব এর মাধ্যমে পণ্য বিক্রি করে অনলাইনের পণ্য বিক্রির ব্যবসা শুরু করতে পারেন।

অনলাইন শপিং অ্যাপস

এটি হচ্ছে অনলাইনে ব্যবসার একটি সবচেয়ে বড় এবং সবচেয়ে ব্যয়বহুল একটি ব্যবসা। কারণ এ ব্যবসা শুরুর আগে আপনাকে একটি অনলাইন শপিং করার জন্য একটি অ্যাপস তৈরি করতে হবে। যার পেছনে আপনাকে অনেক টাকা দিতে হবে। কিন্তু যদি একবার আপনি অ্যাপসটি তৈরি করে ফেলেন এবং গ্রাহকদেরকে ভালো সার্ভিস দিতে পারেন তবে আপনি খুবই ভালো ব্যবসা করে উঠতে পারবেন।

অনলাইন শপিং অ্যাপস মানুষের বিশ্বস্থতা অর্জন করতে পারলে তারপর থেকে মানুষ সেখান থেকেই জিনিসপত্র কিনে। তখন মানুষ অন্য কোথাও থেকে জিনিসপত্র কেনার চেষ্টা করে না। তাই অনলাইন অ্যাপস তৈরি করতে পারলে এবং তাতে ভালো ফলাফল দিতে পারলে মানুষ আপনাকে বিশ্বাস করে আপনার ওখান থেকে জিনিসপত্র কিনবো। যদি আপনি প্রচুর টাকা ব্যয় করে ইনভেস্ট করে অনলাইনে পণ্য বিক্রি করতে চান তবে আপনি অনলাইনে শপিং অ্যাপস তৈরি করে আপনার অনলাইন ব্যবসা শুরু করতে পারেন।

আশা করি আপনারা সবকিছু বুঝে গেছেন যে কিভাবে আপনারা অনলাইনে পণ্য বিক্রি করবেন। আমরা যে সকল মাধ্যমগুলো সম্পর্কে এবং কি কি লাভ সম্পর্কে বলেছি অনলাইনে পণ্য বিক্রি করে তার সম্পর্কে আপনার কোন প্রশ্ন থাকলে আমাদেরকে কমেন্টের মাধ্যমে আপনি জানতে পারেন। আমরা অতি শীঘ্রই আপনার কমেন্টের উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করব। এ পর্যন্ত আমাদের সঙ্গে থাকার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ।

Link – অনলাইন ইনকাম সাইট – জেনে নিন জনপ্রিয় ১০ টি অনলাইন ইনকাম সাইট এর নাম।

Maimuna Khan

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *